শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:১৬ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
সাংবাদিক নাদিম হত্যা: ইউপি চেয়ারম্যান বাবুর রিমান্ড মঞ্জুর বকশীগঞ্জে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা খারিজ বকশীগঞ্জে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে কলেজ অধ্যক্ষকে স্বাগত বকশীগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে রাস্তা কার্পেটিং কাজের উদ্বোধন বকশীগঞ্জে স্কুল থেকে ফেরার পথে তৃতীয় শ্রেনীর শিক্ষার্থী ধর্ষনের শিকার টেলিভিশন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন জামালপুর জেলা শাখার নতুন কমিটি গঠিত বকশীগঞ্জে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা দেওয়ানগঞ্জে মাদ্রাসা শিক্ষকের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন বকশীগঞ্জে পুলিশের অভিযানে বিএনপির ৯ নেতাকর্মী আটক বকশীগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে স্ত্রীর যৌতুকের মামলা

বকশীগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে স্ত্রীর যৌতুকের মামলা

Reporter Name
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১১ মে, ২০২৩
  • ১৩১৬ জন সংবাদটি পড়ছেন

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার সাধুরপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাহমুদুল আলমের বিরুদ্ধে যৌতুকের মামলা দায়ের করেছে তার দ্বিতীয় স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বকশিগঞ্জ আমলী আদালতে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলার বাদী সাবিনার অভিযোগ, ২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর মাহমুদুল আলমের সাথে রেজিস্ট্রি কাবিনমূলে বিবাহ হয়। স্বামী-স্ত্রী একসাথে ঘর সংসার করাবস্থায় মাহমুদুল আলম তার কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। যৌতুক দিতে না পারায় তাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। এ ঘটনায় আদালতে যৌতুকের মামলা দায়ের করলে বিনা যৌতুকে ঘর সংসার করার অঙ্গীকার করে আপোষ মীমাংসা করে। পরবর্তীতে ২০১৯ সালের ২ আগস্ট ৫ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য্য করে রেজিস্ট্রি কাবিনমূলে ফের বিবাহ করে। এরপর থেকে ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলমের সাথে সংসার করতে থাকে। ইতোমধ্যে তাদের ঘরে কন্যা সন্তান জন্ম হয়েছে। মারিহা মুবাখখিরা নামে ওই শিশু বয়স ৫ মাস ১১ দিন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম ৭ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। যৌতুক না পেয়ে নানাভাবে নির্যাতন করে। সন্তানের কথা ভেবে নিরবে সহ্য করেন তার দ্বিতীয় স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন।

গত ৯ মে ইউপি চেয়ারম্যান যৌতুকের জন্য স্ত্রী ও তার শিশু কন্যাকে হত্যার হুমকি দিয়েছে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার বাদী সাবিনা ইয়াসমিন তার স্বামী ইউপি চেয়ারম্যানকে শঠ, প্রতারক, অর্থলোভী, যৌতুক লোভী ও নারী নির্যাতনকারী বলেও উল্লেখ করেছেন।

সাবিনার আইনজীবী এডভোকেট রফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, ২০১৮ সালের যৌতুক নিরোধ ৩৯নং আইনের ৩ ধারায় বকশীগঞ্জ আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেছেন সাবিনা ইয়াসমিন। আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য সিআইডিতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে।

এ ব্যাপারে বক্তব্য জানতে সাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলমের মুঠোফোনে কল দেওয়া হলে তিনি রিসিভ করেননি।

 

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
HelloBangladesh