রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৫:১৮ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :

বকশীগঞ্জে অনুদানে অনিয়ম, সমালোচনার মুখে ইউএনও

স্টাফ রিপোর্টার, বকশীগঞ্জ
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৬ অক্টোবর, ২০২১
  • ১৪৪ জন সংবাদটি পড়ছেন
অনুদান নিচ্ছেন ঝিলিক বস্ত্র বিতানের মালিক ঠান্ডু সাহার স্ত্রী অলোকা সাহা। ছবিঃ ফেসবুক থেকে নেওয়া।

ভাটি সাইফুল নামক ফেসবুক ব্যবহারকারী লেখেন ”উনারা যদি অস্বচ্ছল হয় তাহলে স্বচ্ছল কারা স্যার…?

স্টাফ রিপোর্টারঃ বকশীগঞ্জে কোভিড-১৯ ভাইরাস সংক্রমণ জনিত সমস্যার কারণে বকশীগঞ্জ উপজেলার অসচ্ছল সংস্কৃতিসেবীদের নামে ৫,০০০/- টাকা স্বচ্ছলদের নামে প্রদান করায় সমালোচনা মুখে পড়েছেন বকশীগঞ্জ ‍উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনমুন জাহান লিজা।

৪ তারিখে বকশীগঞ্জে শিল্পকলা একাডেমীর সাথে জড়িত ৬জন শিল্পির নামে প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা করে বিতরণ করেন ইউএনও। পরে এসব অনুদান প্রদানের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করলে কঠোর সমালোচনা পড়েন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনমুন জাহান লিজা।

অনুদান প্রাপ্তরা হলেন, শম্বু চন্দ্র সাহা, সঞ্জিব কুমার দে, অলোকা সাহা, লিপি সাহা, সাজ্জাদ হোসেন খান, এ.কে এম উসমান গনি ও গোপাল চন্দ্র সাহা।

অনুদান প্রাপ্তদের মাঝে অলোকা সাহা হচ্ছেন বকশীগঞ্জে সবচেয়ে বড় কাপড় ব্যবসায়ী ঝিলিক বস্ত্র বিতানের মালিক ঠান্ডু সাহার স্ত্রী। প্রতিদিন প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার উপরে এই দোকানে বেচাকেনা হয়।

শব্মু সাহাও একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ও তার এক ছেলে ইংল্যান্ড প্রবাসী। মাঝে মধ্যেই তার ছেলে পাপন সাহা সাধারন দরিদ্র মানুষদের আর্থিক সহযোগিতা করে থাকেন।

লিপি সাহাও স্বচ্ছল । তার স্বামীর কাপড় ব্যবসায়ী লোকনাথ বস্ত্র বিতানের মালিক সুবাস সাহার স্ত্রী।

স্বচ্ছলদের নামে অনুদান দেওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সমালোচনা ঝড়।

সালাম মাহামুদ নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী লেখেন, সরকারি অনুদান সচ্ছলরাও হাত পেতে নেওয়ার অধিকার রাখে।

ছাত্রলীগ নেতা রাজ রাজন লেখেন মাক্স খুলে দিলে সচ্ছল আর অসচ্ছল সহজেই ধরা পরতো…

ভাটি সাইফুল নামক ফেসবুক ব্যবহারকারী লেখেন উনারা যদি অস্বচ্ছল হয় তাহলে স্বচ্ছল কারা স্যার…?

তৌহিদ জামান লেখেন ‘’ছিঃ লজ্জা লাগছে না? একজনের সন্তান থাকে বিদেশে তিনিও অস্বচ্ছল!এখানে একজন এই টাকার যোগ্য আর বাকি সবাই কি তা তদন্ত করে দেখা যেতে পারে ’’।

তৌহিদ জামান লেখেন. ছিঃ লজ্জা লাগছে না? একজনের সন্তান থাকে বিদেশে তিনিও অস্বচ্ছল!এখানে একজন এই টাকার যোগ্য আর বাকি সবাই কি তা তদন্ত করে দেখা যেতে পারে ।

এই বিষয়ে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা সুলতান মাহামুদের নিকট জানতে চাইলে এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনমুন জাহান লিজা এ নিয়ে জানতে চাইলে  মিটিংএ আছি বলেই তিনি কেটে দেন।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ

Site Statistics

  • Users online: 0 
  • Visitors today : 45
  • Page views today : 59
  • Total visitors : 259,062
  • Total page view: 344,136
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102