বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০১:০২ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
বকশীগঞ্জে সংবাদ প্রকাশের জের, থানায় চাঁদাবাজীর অভিযোগ করল আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য বকশীগঞ্জে রহস্য উদঘাটন করলেন ওসি, জিজ্ঞাসাবাদে জানালো সে বাংলাদেশী বকশীগঞ্জে এসডিজি নীতিমালা বাস্তবায়ন ও প্রত্যাশা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত বকশীগঞ্জে জনতার হাতে আটক ভারতীয় নাগরিককে উদ্ধার করল পুলিশ বকশীগঞ্জে কর্মরত পুলিশ কনেস্টবল নিজামের অর্থে ১ কিলোমিটার রাস্তা সংস্কার বকশীগঞ্জে দিনমজুর সেজে গণধর্ষন মামলার আসামী গ্রেফতার করল পুলিশ বকশীগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক দলের দুই ইউনিটের আহ্বায়ক কমিটি গঠিত বকশীগঞ্জে শ্বশুর ও দেবরের নির্যাতনে মৃত্যু শয্যায় গৃহবধু বকশীগঞ্জে নারীসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক ৬ দফা দিবসে জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

বকশীগঞ্জে বাসের বদলে ট্রাক, মানুষ যখন পণ্য

স্টাফ রিপোর্টার, বকশীগঞ্জ
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৭ মে, ২০২১
  • ১৯০ জন সংবাদটি পড়ছেন

জামালপুরঃ অফিস খুলতে শুরু করেছে। রাজধানীতে কর্মস্থলের দিকে ছুটছে মানুষ। লক ডাউনে দুরপাল্লার গণ পরিবহন বন্ধ থাকা স্বত্বেওে মানুষ নাড়ীর টানে বাড়ী এসেছে। আসার সময় পর্যাপ্ত সময় থাকায় মানুষ দুর্ভোগ শিকার হলেও ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে কোন লকডাউনই তাদের আটকাতে পারেনি।

বিপত্তি হচ্ছে কর্মস্থলে যোগদান নিয়ে। এক সাথে সমস্ত অফিস কর্মস্থল খোলায় চাপ পড়ে যাচ্ছে।

সাধারন বাস ভাড়া যেখানে ৩০০ টাকা এখানে ১৫০০ টাকা ভাড়া দিয়ে মানুষ ছুটছে রাজধানীর দিকে। দুরপাল্লার বাস সার্ভিস বন্ধ থাকায় ব্যক্তিগত গাড়ী, এম্বুলেন্স, মাইক্রোবাস যোগে তারা রাজধানীতে যাওয়ার চেষ্টা করছে।

কিন্তু যাত্রীচাপ থাকায় এখন ছুটছে ট্রাকে করে।

জামালপুর সদর, বকশীগঞ্জ, দেওয়ানগঞ্জ, ইসলামপুর, মাদারগঞ্জ ঘুরে দেখা যায় এমন চিত্র। ১৬ মে থেকে শুরু হওয়া লক ডাউন পুরোপুরি ভেঙ্গে পড়েছে। যাত্রী চাপে স্বাস্থ্য বিধিই এখন পড়ছে চরম লজ্জার মুখে।

প্রতিটি ট্রাকে করে প্রায় অর্ধশতাধিক মানুষ গাদা গাদি করে ট্রাকে উঠছে। স্থানীয়ভাবেও প্রশাসন অনেকটা নিরব। চাকুরীর হারানোর ভয়ে মানুষ নিজেদের পণ্য করে যাচ্ছে কর্মস্থলে। সরকারের চলতি লক ডাউন নিয়ে সাধারন মানুষ প্রচন্ড ধরনের ক্ষুব্ধ।

ট্রাকে উঠা এক গার্মেন্টস শ্রমিক ইলিয়াস হোসেন জানান, লক ডাউনে এখন পর্যন্ত সরকারী ১টাকা সহযোগিতা পায়নি, চাকুরী না থাকলে না খেয়ে মারা যেতে হবে। করোনার মৃত্যুর চেয়ে ক্ষুধার জ্বালা কঠিন। তাই জীবনের ঝুকি নিয়ে হলেও কর্মস্থলে যোগদানের জন্য বেড়িয়েছি।

অপর আরেক শ্রমিক জানান, দুরপল্লার বাস সার্ভিস বন্ধ করে সরকার তামাশা করছে। যে আসার এসেছে আর যে যাবার যাবেই, সেটি যেভাবেই হোক।

এদিকে দুরপাল্লার বাস সার্ভিস বন্ধ থাকায় এত চাপ থাকার পরেও অলস অবস্থায় পড়ে আছে বাসগুলি। এ নিয়ে জেলার বাস মালিকদের মঝেও রয়েছে চরম ক্ষোভ। তারা জানান, একটা বাসে সামাজিক দুরুত্ব রক্ষা করা সম্ভব হলেও তা বন্ধ রেখেছে। অথচ ট্রাক ও অন্যান্য যানবাহনে কোন ধরনের স্বাস্থ্য বিধি মানা হচ্ছে না, তারপরেও সেগুলো চালু রয়েছে।

দুরপাল্লার বাস সার্ভিস বন্ধ থাকায় সাধারন মানুষ দুর্ভোগের পাশাপাশি অর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ বাস মালিক ও শ্রমিকরা। দ্রুত দুরপাল্লার বাস সার্ভিস চালুর অনুমতিও চান তারা।

বকশীগঞ্জ বাস মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম জানান, বাস সার্ভিস বন্ধ থাকায় সাধারন মানুষ চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। জীবনের ঝুকি নিয়ে তারা ট্রাকে করে স্বাস্থ্য বিধি ভঙ্গ করে ছুটছে তারা। অথচ বাস সার্ভিসে স্বাস্থ্য বিধি মানা হলেও সেটিকে বন্ধ রেখেছে সরকার।

জামালপুর জেলা প্রশাসক (ডিসি) মুর্শেদা জামান জানান, স্বাস্থ্য বিধি মানতে জেলা উপজেলায় প্রচুর পরিমান ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হচ্ছে। সরকারের ঘোষিত লক ডাউনের বিষয়ে উপর সিদ্ধান্তের বাইরে যাবার সুযোগ নেই।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102