শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৪:১২ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :

সাংবাদিকতা একাল ও সেকাল-১

স্টাফ রিপোর্টার, বকশীগঞ্জ
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২১
  • ২০৫ জন সংবাদটি পড়ছেন

২০০২ সালের প্রথম দিকের ঘটনা একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে আমাদের গ্রামে। একটি স্বাভাবিক মৃত্যুকে অস্বাভাবিক বানিয়ে গ্রামবাসীদের ফাঁসানোর চেষ্টা চলছে। পুলিশও সেই ফাঁসানোর নাটকে মুল কারিগর। এটাকে হত্যা মামলা দায়ের করে প্রায় ২৫/৩০ জন আসামী করা হয়। যদিও ময়না তদন্ত প্রতিবেদনে এটা স্বাভাবিক মৃত্যু হিসাবে মামলাটি খারিজ হয়ে যায়। কিন্তু মৃতদেহ উদ্ধারের পরেই গ্রাম হয়ে যায় পুরুষ শূণ্য। যারা আসামী হয়েছিলেন তারও আমার খুবই কাছের মানুষ।

সেই সময়টাতে বকশীগঞ্জ কিয়ামত কলেজে ডিগ্রীতে পড়াশোনা করি। বকশীগঞ্জ যাতায়াতের সুবাধে সাংবাদিকদের সাথে পরিচয়ও ছিল।

এই ঘটনাটি এক সাংবাদিককে খোলে বললাম। তিনি মনোযোগ সহকারে শোনলেন। পরদিন ঘটনাস্থলে গিয়ে একটি রিপোর্টও করলেন। এই রির্পোটে পুরো ঘটনাটি শুধু স্বাভাবিকই হয়নি, সংবাদটি প্রকাশিত হওয়ার পর জামালপুর পুলিশ সুপার নিজে ঘটনাস্থলে আসলেন এবং ওই পুলিশের এসআইকে প্রত্যাহারও করে নিলেন।

সাংবাদিকের এ ধরনের সাহসি সংবাদ দেখে নিজেকে সাংবাদিক হওয়ার ইচ্ছার বীজটি বপন হয় সেদিনই।

ওই সময়টাতে একজন সাংবাদিকের আকাশচুম্বি মুল্যায়ন আজ চোখের কোনে জ্বলজ্বল করে ভাসে।

বর্তমানের প্রেক্ষাপটে সাংবাদিকের কথা শোনলেও মানুষের মধ্যে একটি প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। এর অবশ্যই কারণও রয়েছে। এখন আর ক্যামেরাও লাগে না, একটা স্মার্ট ফোনের সহায্যে সবাই এখন সবাই সাংবাদিক।

বিশেষকরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের কারণে মুলধারা সাংবাদিকতা থেকে বিচ্যুত হয়ে গেছে অনেক আগেই। বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকার কারণে কে সাংবাদিক আর কে সাংবাদিক নয় তা বোঝতে হলে নিজেকে বিশেষজ্ঞ হতে হবে।

আজ ফেসবুক আর স্মার্ট ফোনের কল্যাণে সাইকেল কেনার সমর্থ্য না থাকলেও বিমানে উঠা যায়, পুকুরে না নামলেও সাগরে সাতাঁর কাটা যায়। সাংবাদিকের সাইনবোর্ড ব্যবহার করে সুদের ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপরাধ করেও পার পাওয়ার শক্তিশালী প্লাটর্ফম হচ্ছে এই সাংবাদিকতা। চলবে……

 

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102