বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :

মুক্তিযোদ্ধার ঘর নির্মাণের দাবী করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিলেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৩১ জুলাই, ২০১৮
  • ১৫৭৬ জন সংবাদটি পড়ছেন
চালা ঘরের সামনে মুক্তিযোদ্ধা নজরুল

বিশেষ প্রতিনিধিঃ জামালপুর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক সুরুজ্জামান ইসলামপুরে মৌজাজাল্লা গ্রামে পলেথিনের চালায় বসবাসকারী মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলামকে বসতভিটাসহ ঘরবাড়ী নির্মান করে দেওয়ার জন্য স্থানীয় এমপির প্রতি অনুরোধ করেছেন।



এর আগে সাংবাদিক আজিজুর রহমান চৌধুরী তার ফেসবুকে টাইম লাইনে এই মুক্তিযোদ্ধাকে নিয়ে স্ট্যাটাস দিলে সবার নজরে আসে।
স্ট্যাটাসে আজিজুর রহমান চৌধুরী লেখেন,

ইসলামপুরে পলিথিনের চালাঘরে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বসবাস।
ইসলামপুরের মৌজাজাল্লা গ্রামে রাস্তার ধারে ময়লার ভাগারের পাশে অন্যের জমিতে টিনের বেড়ার উপর পলিথিনের চালা ঘর তুলে বসবাস করছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম ও তার দরিদ্র পরিবার। 
মুক্তিযোদ্ধার সম্মানী ভাতা দিয়ে তাদের চিকিৎসা ও পেটের ভাতই জুটেনা। মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলামের স্ত্রী জামরুন নাহার ভিক্ষা করেন। তাদের এক ছেলে ফুটপাতে চা বিক্রি করেন এবং অপর ছেলে রিক্সা চালিয়ে কোন রকমে নিজেদের জীবন বাঁচান। 
মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম অন্তত: মৃৃত্যুর আগে হলেও স্বাধীন বাংলাদেশের কোথাও একখন্ড জমিতে নিজের ঘরে পেট ভরে ভাত খেয়ে একটু শান্তিতে ঘুমাতে চান।

সাথে জুরে দেন ৩টি ছবিও।

ফেসবুকে প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথে নজরে আসে এমপি মাহাজাবিন খালেদ বেবির। দ্রুত ছুটে যান মুক্তিযোদ্ধার কাছে। তাৎক্ষনিক ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ঢেউটিন দিয়ে সহযোগিতা করে। এ সময় দ্রুত মুক্তিযোদ্ধার নামে জমি বরাদ্দ দেওয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনক নির্দেশ প্রদান করেণ।

এদিকে এ খবরটি নিয়ে চরম ক্ষুব্দ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক সুরুজ্জামান। তিনি বলেন, যাদের ত্যাগের বিনিময়ে আজ আমরা নেতা, তারা থাকবে পলিথিনের ঘরে, এটা কোনভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। তিনি দ্রুত এই মুক্তিযোদ্ধার বসত ভিটাসহ দ্রুত ঘর নির্মানের জন্য স্থানীয় এমপিকে অনুরোধ করে তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লেখেন

সম্প্রতি 
এই খবরটি বীর মুক্তিযোদ্ধা 
সেক্টর কমান্ডার প্রয়াত বিগ্রেডিয়া খালেদ মোশারফ এঁর সুযোগ্য কন্যা বেবী মোশারফ এমপি’র নজরে পড়ায় তিনি এই পরিবারটির পাশে দাঁড়িয়েছেন।

“মানিকে মানিক চিনে!”
কথাটি সত্যি বলেই, একজন মুক্তিযোদ্ধার কন্যা 
হিসাবে তিনি এই অসহায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটির দিকে সহায়তার হাত সম্প্রসারিত করেছেন। এই উপজেলায় আরও একজন এমপি আছেন! তিনি এই পরিবারটির জন্য কতটুকু সহযোগিতা করেন 
সে প্রত্যাশায় রইলাম।#

মন্তব্য:
——–
জামালপুর -২( ইসলামপুর) আসনের মাননীয় 
সাংসদ আলহাজ্ব মো: ফরিদুল হক খান দুলাল সাহেবের প্রতি বিনীত অনুরোধ রইল, এই পরিবারটির বাড়ী করার একখন্ড জমির ব্যবস্থা করার জন্য একটু সুনজর দিবেন কি?
আমি জানি,
আপনার জন্য এটি দু:সাধ্য নয়।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102