শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:৩৩ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
বকশীগঞ্জে বাংলাদেশ সেল ফোন রিপেয়ার ট্যাকনেশিয়ান এসোসিয়েশনের পরিচিতি সভা কামালপুর ইউনিয়নে মানবাধিকার কমিশনের কমিটির অনুমোদন বকশীগঞ্জে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ২টি বাল্য বিয়ে পন্ড, কনের বাবার জরিমানা বকশীগঞ্জে ট্রাকের চাপায় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের মৃত্যু বকশীগঞ্জে বিট পুলিশিং সচেতনতায় পথসভা অনুষ্ঠিত বকশীগঞ্জে ফেব্রুয়ারীতেই পাচ্ছে করোনার টিকা নাগরিকদের জীবনমান উন্নয়নে সবার সহযোগিতা চাই.. মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর বকশীগঞ্জে ছাত্রদলের বিক্ষোভ সমাবেশ বকশীগঞ্জে মুজিববর্ষকে স্মরণীয় রাখতে বৃক্ষ স্মারক রোপণ বকশীগঞ্জে বাংলাদেশ সেল ফোন রিপেয়ার ট্যাকনেশিয়ান এসোসিয়েশনের আলোচনা সভা

১০টাকা কেজি দরে চাল বিতরন।১২ মাসেই চালু রাখার দাবি

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৯ এপ্রিল, ২০১৮
  • ১৫১৪ জন সংবাদটি পড়ছেন

গোলাম রাব্বানী নাদিম, নিলক্ষিয়া থেকে ফিরেঃ  জামালপুরের বকশীগঞ্জে ৩ মাস বন্ধ থাকার পর খাদ্য বান্ধব কর্মসুচির আওতায়ায় ১০টাকা কেজি দরে চাউল বিতরন কার্যক্রম আবার শুরু হয়েছে।

সোমবার জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার নিলক্ষিয়া ইউনিয়নের ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডসহ অন্যান্য স্থানে ঘুরে চাল বিতরনের এসব চিত্র দেখা যায়।

স্থানীয় বাজারে যখন ৪০টাকা কেজি মোটা চাউল সেখানে ১০টাকা কেজি দরে চাউল পাওয়াতেও খুশি সাধারন খেটে খাওয়া মানুষ গুলো।তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এসব চাউল দিয়েই তাদের চাউলের চাহিদা অনেকটাই মেটাতে সক্ষম হচ্ছেন। 

নিলক্ষিয়া ইউনিয়নের অধিবাসী হৃতদরিদ্র শ্রী মন্টু লাল মোদক জানান, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের কথা চিন্তা করে ১০টাকা কেজি দরে চাউল দিচ্ছে। এতে আমার পরিবারসহ অনেক পরিবারই সুবিধা পাচ্ছে। এ কার্যক্রম প্রতি মাসেই চালু রাখার দাবি জানান তিনি।
অপর কার্ডধারী জরিনা বেগম জানান, বর্তমান এ অভাবের সময় বাজারে যে কোন চালের দাম ৪০টাকা। আমরা এখানে ১০কেজি দামে চাউল পাই। তিনিও এ কার্যক্রম বছরে ১২মাস চালু রাখার দাবি জানান।

সংশ্লিস্ট ওয়ার্ডের ডিলার নজরুল ইসলাম জানান, ৩টি ওয়ার্ডের তালিকাভুক্ত ৬২৪ জন হৃত দরিদ্রদের মাঝে গত ৩দিনে এসব চাউল বিতরন করা হয়।
বছরে ৫ মাস এসব চাউল বিতরণের কথা রয়েছে।এটি বছরে ১২মাসেই এই কর্মসুচি চালু রাখার দাবি জানান।

অপর ডিলার নোওরোজ জানান, ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের কার্ডধারীর সংখ্যা ৬২০ জন। গত ২দিনে ৪০০জনের মাঝে চাউল বিতরণ করা হয়েছে। আগামী কালের মধ্যে সমস্ত কার্ডধারীর নামে বরাদ্দকৃত চাউল বিতরন শেষ করা হবে।
তদারকি কর্মকর্তা গৌতম কুমার জানান, সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী এসব চাউল হৃতদরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে।
উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা শাহিনা বেগম জানান, উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে ১৩ হাজার ৩৩৯টি পরিবার খাদ্যবন্ধব কর্মসুচির আওয়তায় ১০টাকা কেজি দরে চাউল ক্রয় করছেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসান সিদ্দিক জানান, সুষ্ঠুভাবে বিতরনে লক্ষ্যে প্রতিটি স্থানে একজন করে তদারকি কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102