শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৯:২৭ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :

বকশীগঞ্জ পৌর নির্বাচন ॥ যা জানালেন তদন্ত কমিটির প্রধান

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮
  • ৯০২ জন সংবাদটি পড়ছেন

বিশেষ প্রতিনিধিঃ দেশের সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশ পালন করার জন্যই এই তদন্ত কমিটি। এখানে তদন্ত করে যা পাওয়া যাবে অথবা জানা যাবে তা আদালতে পেশ করা হবে, এই তদন্ত প্রতিবেদনের উপর ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নিবে আদালত, এভাবেই নিজের প্রতিক্রিয়া জানালেন বকশীগঞ্জ পৌর নির্বাচন নিয়ে তদন্ত কমিটির প্রধান, নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সচিব মোঃ ফরহাদ হোসেন।



সোমবার তদন্ত চলাকালে দুপুরে বিরতির সময় সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় কালে এসব কথা বলেন।
এ সময় নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ২ সদস্যের তদন্ত কমিটির অপর সদস্য টাঙ্গাইল জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম ও জামালপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মঞ্জুর আলম উপস্থিত ছিলেন।
জনগণের ভোটে ৩য় অবস্থানে থাকা পরাজিত মেয়র প্রার্থী রিট করেছেন কিন্তু কাউন্সিলর প্রার্থী ও এজেন্টদের এখানে ডাকার কারণে সর্ম্পকে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাব তদন্ত কমিটির প্রধান বলেন, যেখানে কোন ঘটনা ঘটে সেখানেই সবাই স্বাক্ষী, সে কারণে নির্বাচনে দায়িত্বরত সবাইকে ডাকা হয়েছে, তবে এখানে যে আসতেই হবে, সেটা বাধ্যগত নয়, ইচ্ছা হলে কেউ আসবেন, ইচ্ছা না হলে কেউ আসবে না, আমরা কাউকে জোড় করছি না। এছাড়া বিষয়টি ভোট কক্ষের বিষয়, সেখানে তো ভোট কক্ষের ভিতরে এরাই ছিল।
আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, রিট পিটিশনকারী উচ্চ আদালতে বিচার চেয়েছেন, উচ্চ আদালত তার আবেদন গ্রহন করে আমাদের তদন্ত করতে বলেছেন, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা তদন্ত করছি। তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করব আমরা, সিদ্ধান্ত নিবে আদালত।
নির্বাচনে এত কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনির মধ্যে থেকেও মালিরচর হাজীপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে ব্যালট পেপার ছিনতাই হল এতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্ব ও কর্তব্যের প্রতি সংশয় প্রকাশ করে তিনি বলেন, ব্যালট পেপার ছিনতাই হল, একটা গুলিও হল না, এটা কেমন কথা, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সেখানে কি করেছে?
১৩ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার ৭নং বকশীগঞ্জ খয়ের উদ্দিন সিনিয়র মাদ্রাসা ৮নং চরকাউরিয়া মাঝপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, চরকাউরিয়া মাঝপাড়া জামিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসা, ও ৯ নং টিকর কান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল মেয়র, কাউন্সিলর ও মহিলা কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী।
এছাড়া নির্বাচনে দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তা, সকল ভোট কেন্দ্রের দায়িত্বরত আনসার সদস্য, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা, প্রিজাইডিং অফিসার বৃন্দ, পোলিং অফিসার বৃন্দ, মনোনিত প্রতিদ্বন্দি প্রার্থীর এজেন্টদের তদন্ত কমিটির সামনে স্বাক্ষী দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
গত ২৮ ডিসেম্বর বকশীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১২টি কেন্দ্রের মধ্যে ১১টি কেন্দ্রেই সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করে নির্বাচন কমিশন। কিন্তু মালিরচর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে ব্যালট পেপার ছিনতাই করে জোড় পুর্বক সিল মারার চেষ্টা করলে উক্ত কেন্দ্রের ভোট গ্রহন স্থগিত করে দায়িত্বরত প্রিজাইডিং অফিসার নাসির উদ্দিন।
২৮ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে বকশীগঞ্জ পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম সওদাগর ৮৯৪ ভোট বেশি পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। তার নিকতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপি প্রার্থী ফখরুজ্জামান মতিন তার প্রাপ্ত ভোট সংখ্যা ৭ হাজার ৭০৫। রিট পিটিশনকারী আওয়ামীলীগ প্রার্থী ৩য় স্থানে। তার প্রাপ্ত ভোট সংখ্যা ৫ হাজার ১৬০।
স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় নৌকা মার্কার এজেন্টদের বের করে দিয়ে জোড় পুর্বক সিল মারার অভিযোগ এনে পুনঃ ভোট গ্রহন বা পুনঃ নির্বাচনের দাবিতে উচ্চ আদালত একটি রিট পটিশন দায়ের করে পৌর নির্বাচনে ৩য় স্থানে থাকে আওয়ামীলীগ প্রার্থী শাহিনা বেগম, রিট পিটিশন নং ৫১৯/২০১৮। উচ্চ আদালত তার এই রিট পিটিশনের প্রেক্ষিতে ১৫দিনের মধ্যে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দেয়।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102