শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ০৬:৩২ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
করোনাকালীন সময় মানুষের পাশে প্রবাসী বাংলাদেশি শারমিন রহমান এবং শেখ আরিফ রাব্বানি জামি বকশীগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের পাঁশে দাড়ালেন মেয়র নজরুল বকশীগঞ্জে অগ্নিকান্ড, ৭ লক্ষ টাকা ক্ষতি শারীরিক প্রতিবন্ধী নারীকে আর্থিক সহায়তা করলেন পুলিশ সুপার বকশীগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধা রশীদ মাষ্টারের মৃত্যু, সর্ব মহলে শোক বকশীগঞ্জে সাংবাদিক পরিবারের উপর হামলাকারী রাসেলের জামিন নামঞ্জুর জামালপুর প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ জামালপুরে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের ২৭তম  প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত জামালপুরে মুক্তিযোদ্ধার জমি অবৈধ ভাবে দখলের চেষ্টা বকশীগঞ্জে লক ডাউনে দোকানের ছবি তোলায় সাংবাদিকের উপর হামলা, হামলাকারী আটক

মাঠের হিরো নুর মোহাম্মদ আর রশিদুজ্জাম মিল্লাত

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০১৮
  • ১৬০৮ জন সংবাদটি পড়ছেন

গোলাম রাব্বানী নাদিম ঃ সোমবার ঠিক বিকাল ৪টা। কিন্তু শীতের কারণে তখনও সকালই মনে হচ্ছে। সেই সময়ই মেরুরচর গ্রামের মাঝ দিয়ে লুৎফরগঞ্জ বাজার দিকে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছি।
মেরুরচর হাছেন আলী উচ্চ বিদ্যালয় পাশ দিয়ে যাচ্ছি। দোকান পার হয়েই একটি দোকান, দীর্ঘদিনের পানভ্যাস, কাচা সুপারী আর রতন জর্দা ভিষণ প্রিয়। খেতেও ভাল লাগে। ওই সময়ই কথা হয় হাকিম নামের এক লোকের সাথে, বাড়ী কলকিহারা। বকশীগঞ্জ পৌর শহরে বাসা ভাড়া করে থাকেন। উদ্দেশ্য ছোট একটা ভাই ও মেয়েকে পড়াশোনা করানো।


ভর্তি করিয়ে স্থানীয় এক কেজি স্কুলে, তার কাছেই জিজ্ঞাসা করে নিলাম লুৎফরগঞ্জ বাজারে যাওয়া সহজ রাস্তাটি।
তিনি অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথেই সহজে যাওয়ার রাস্তা জানিয়ে দিয়েই কৌতুহল করে বলেই ফেললেন, সাংবাদিক সাহেব খবর কি?
কিসের খবর? জিজ্ঞাসা করার সাথে সাথেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে খোলামেলা বলতে শুরু করলেন।
জানালেন আওয়ামীলীগের অবস্থা। মেরুরচর আমাদের এমপি সাহেবের নিজের ইউনিয়ন। বকশীগঞ্জের অন্যান্য ইউনিয়নের সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন হয়েছে বলে তিনি জানান, বকশীগঞ্জ থেকে দেওয়ানগঞ্জ যাওয়ার রাস্তাটি এই মেরুরচরের মধ্যে দিয়েই হয়েছে। হয়েছে ৪টি সেতু। মাদারচরের একটি বড় সেতু নির্মিত হচ্ছে।
আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে যত কাজ হয়েছে, অন্য কোন সরকারের আমলে তা হয়নি। কিন্তু জনগণ আওয়ামীলীগ ভোট দিতে চায় না। নিজেই কথাগুলো বলতে শুরু করলেন।
একের পর এক নিজেই প্রশ্ন করে নিজেই উত্তর দিতে শুরু করলেন, আওয়ামীলীগের আমলে পৌরসভা হল কিন্তু আওয়ামীলীগের প্রার্থীর অবস্থা ৩ নম্বরে।

বর্তমানে এখানে প্রতিকের প্রভাবের সাথে সাথে ব্যক্তির প্রভাব রয়েছে। প্রতিকের দিকে নির্ভর করে প্রার্থী বাছাই করলে সংসদ নির্বাচন হলে স্বতন্ত্র কোন প্রার্থী থাকলে পৌরসভার মতই অবস্থা হবে। যদি রশিদুজ্জামান মিল্লাত বিএনপি থেকে মনোনয়ন পায়।

তিনি আরও খোলাখুলি বললেন, আর যদি বিএনপি থেকে কাইয়ুম সাহেব মনোনয়ন পায়, এদিকে আওয়ামীলীগ থেকে কালাম সাহেব মনোনয়ন পায় তবে নির্বাচন হবে হাড্ডাহাড্ডি।
আর যদি বিএনপি থেকে মিল্লাত আর আওয়ামীলীগ থেকে নুর মোহাম্মদ পায় সেটাও হবে কঠিন লড়াই । কে জিতে আর কে হাবে কেউ বলতে পারবে না। ব্যাবধান হবে অল্প, লড়াই কঠিন।
বিএনপি থেকে মিল্লাত আর আওয়ামীলীগ থেকে কালাম, তাহলে হিসাব সহজ। সকাল ১১টার মধ্যেই ফলাফল।
একই অবস্থা আওয়ামীলীগ থেকে নুর মোহাম্মদ আর বিএনপি থেকে কাইয়ুম। ফলাফল সেই সকাল ১১টাতে। ক্লিয়ার। এভাবে প্রতিক্রিয়া জানালেন তিনি। মুল কথা হচ্ছে মাঠের হিরো নুর মোহাম্মদ আর মিল্লাত আর প্রতিকের হিরো কালাম আর কাইয়ুম।
এতকথা বাদ দে, চল বকশীগঞ্জ যাই বলেই তার সাথে থাকা অপরিচিত ব্যক্তি টানতে টানতে মোটরসাইকেল তোলে রওনা দিল বকশীগঞ্জের দিকে।
চলবে…

 

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102