মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৮:১৫ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English

স্ত্রীর পরকীয়া ঠেকাতে সংবাদ সম্মেলন করছেন স্বামী

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০১৭
  • ৭৭৯ জন সংবাদটি পড়ছেন

কুড়িগ্রামে স্ত্রীর পরকীয়া ঠেকাতে নিরুপায় হয়ে সংবাদ সম্মেলন করছেন স্বামী।

রোববার সন্ধ্যায় ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙামোড় ইউনিয়নের নেওয়াশী গ্রামে নিজ বাড়িতে এই সংবাদ সম্মেলন করেন প্রদীপ কুমার পাল বাপ্পী।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাপ্পীর দুই শিশু কন্যা তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী মিষ্টি পাল ও প্রথম শ্রেণির ছাত্রী পূজা পাল।

সংবাদ সম্মেলনে প্রদীপ কুমার পাল বাপ্পী অভিযোগ করে বলেন, প্রায় ১১ বছর আগে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের বিশ্বনাথ কুণ্ডুর মেয়ে বীথি রানী পালের (২৬) সঙ্গে তার বিয়ে হয়। সংসার জীবনে তাদের দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। সম্প্রতি, তার স্ত্রী বীথি রানী পাল পার্শ্ববর্তী বোয়ালভীর গ্রামের মৃত সুধীর চন্দ্র দাসের ছেলে দুই সন্তানের জনক বকুল চন্দ্র দাসের (৪৭) সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। বিষয়টি তিনি ও তার পরিবারের লোকজন জানতে পেরে স্ত্রী বীথিকে সরে আসার জন্য বলেন। এ বিষয়ে স্থানীয়দের উপস্থিতিতে শালিস-বৈঠকও হয়।

তিনি আরো বলেন, এসব অবজ্ঞা করে গত ৩ ডিসেম্বর রাতে স্ত্রী বীথি তার প্রেমিক বকুলের বাড়িতে চলে যায়। বিষয়টি জানতে পেরে তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা স্ত্রীকে ফিরিয়ে নিয়ে আসেন। এরপরও বীথি প্রেমিকের সংসার করবেন বলে জানিয়ে দেন।

তিনি জানান, স্ত্রীর পরকীয়ায় বাধা হয়ে দাঁড়ানোর কারণে স্ত্রীর প্রেমিক বকুল চন্দ্র দাস তাকে প্রাণনাশের হুমকিসহ নানা ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। এতে তিনি এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

এ অবস্থায় ফুলবাড়ী থানায় সাধারণ ডায়েরির জন্য গেলেও পুলিশ সেই ডায়েরি গ্রহণ করেনি। তবে কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার বরাবর গত ২০ ডিসেম্বর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তিনি।

প্রদীপ কুমার পাল আরো বলেন, আমার অবাধ্য স্ত্রীর এই পরকীয়া প্রেমে আমি ধুঁকে ধুঁকে মরে যাচ্ছি। স্ত্রীর পরকীয়া প্রেম থেকে আমি বাঁচতে চাই। এ সময় তিনি তার স্ত্রীকে আইনি প্রক্রিয়ায় বিদায় জানানোর জন্য সংশ্লিষ্ট পুলিশ প্রশাসনসহ অন্যান্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের আইনি সহায়তা কামনা করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বীথি রানী পাল বলেন, এ ঘটনায় তার স্বামী প্রদীপ কুমার পাল বাপ্পীর কোনো দোষ নেই। তিনি তার স্বামীর আর সংসার করবেন না। প্রেমিক বকুল চন্দ্র দাসের সঙ্গে ঠাকুরঘরে তার মালাবদল হয়েছে। দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে বকুল চন্দ্র দাসের সঙ্গে তার প্রেম চলছে।

তিনি আইনিভাবে স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে প্রেমিক বকুল চন্দ্র দাসের সংসার করতে চান। এ অবস্থায় কেউ বাধা দিলে তিনি আত্মহত্যা করবেন বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102