সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
কিডনী রোগী মিম এর পাশে দাঁড়ালেন জামালপুরের পুলিশ সুপার নাসির উদ্দিন করোনাকালীন সময় মানুষের পাশে প্রবাসী বাংলাদেশি শারমিন রহমান এবং শেখ আরিফ রাব্বানি জামি বকশীগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের পাঁশে দাড়ালেন মেয়র নজরুল বকশীগঞ্জে অগ্নিকান্ড, ৭ লক্ষ টাকা ক্ষতি শারীরিক প্রতিবন্ধী নারীকে আর্থিক সহায়তা করলেন পুলিশ সুপার বকশীগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধা রশীদ মাষ্টারের মৃত্যু, সর্ব মহলে শোক বকশীগঞ্জে সাংবাদিক পরিবারের উপর হামলাকারী রাসেলের জামিন নামঞ্জুর জামালপুর প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ জামালপুরে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের ২৭তম  প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত জামালপুরে মুক্তিযোদ্ধার জমি অবৈধ ভাবে দখলের চেষ্টা

বকশীগঞ্জের গৃহবধূকে ভারতে পাচার করায় মানব পাচারকারী গ্রেপ্তার

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৯ নভেম্বর, ২০১৭
  • ৫৫৮ জন সংবাদটি পড়ছেন

বকশীগঞ্জ প্রতিনিধি
জামালপুরের বকশীগঞ্জে মফিজল হক (৫০) নামে এক মানব পাচার কারীকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। বুধবার সকালে মেরুরচর ইউনিয়নের আউল পাড়া গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ২০১০ সালে মেরুরচর ইউনিয়নের আউল পাড়া গ্রামের মফিজল হকের মেয়ে মর্জিনা বেগম (২৫) কে ভারতীয় নাগরিক শিব সংকর ওরফে মান্না বিয়ে করেন। এর পর থেকে ভারতীয় নাগরিক শিব সংকর মান্না বাংলাদেশে যাতায়াত করতো। এক পর্যায়ে স্থানীয় এলাকার মানুষের সঙ্গে মান্নার সুসম্পর্ক গড়ে উঠে। এই সুযোগে গত ০৪.০৬.২০১৪ ইং তারিখে মেরুরচর ইউনিয়নের উত্তর পাড়া গ্রামের টাইমউদ্দিনের স্ত্রী গৃহবধূ মাহফুজা বেগমকে চাকুরী দেয়ার কথা বলে প্রতিবেশি জলিল মিয়া ও জালাল মিয়ার সহযোগিতায় বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচার করে শিব সংকর মান্না। মাহফুজা বেগমকে পাচারের খবর জানাজানি হলে তার স্বামী টাইম উদ্দিন বাদী হয়ে বকশীগঞ্জ থানায় গত ১৮.০৬.২০১৪ ইং তারিখে মানবপাচার আইনে একটি মামলা দায়ের করেন ।
অপরদিকে মাহফুজা বেগমকে চাকুরী দিতে না পারায় ১৩ দিন পর বাংলাদেশে ফেরত পাঠায় ভারতীয় ওই নাগরিক। পরে গত ০২.০৭.২০১৪ ইং তারিখে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ ময়মনসিংহ ব্রিজ মোড় থেকে গৃহবধূ মাহফুজা বেগমকে উদ্ধার করেন। এসময় মানব পাচারে সহযোগিতা করায় জলিল মিয়া ও জালাল মিয়াকেও আটক করা হয়।
এঘটনা পর থেকে শিব সংকর মান্নার শ্বশুর মফিজল হক ও তার মেয়ে মর্জিনা বেগম পলাতক ছিল। দীর্ঘদিন ধরে পলাতক থাকায় এই মামলার আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে বিজ্ঞ আদালত।
অবশেষে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে পলাতক আসামি মফিজল হককে (মান্নার শ্বশুর) বুধবার সকালে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং দুপুরে তাকে জামালপুর আদালতে পাঠানো হয়।
বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আসলাম হোসেন জানান, মাহফুজা বেগমকে পাচার করা মামলায় মফিজল হককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পাশাপাশি ভারতীয় নাগরিক মান্নার সম্পর্কেও খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে ।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102