মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ০২:০৫ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
সরিষাবাড়ীতে ভ্রাম্যমান আদালতে অবৈধ ড্রেজার মালিকের হামলা লক ডাউন ভেঙ্গে রাস্তায় গণপরিবহন, সুনির্দিষ্ট আইন না থাকায় ফেরত পাঠিয়ে সন্তোষ্ট হাইওয়ে পুলিশ বকশীগঞ্জে রেডীর ত্রাণ বিতরণ বকশীগঞ্জ জনতার হাতে আটক আসামীকে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ হাইওয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে (ভিডিও সহ) বকশীগঞ্জে খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি চেয়ে দোয়া মাহাফিল বকশীগঞ্জে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন বিতরণ পল্লী বিদ্যুতের সকল ভাল কাজে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে.. আব্দুর রউফ তালুকদার বকশীগঞ্জে পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএমকে অপসারণে মিথ্যা অভিযোগের ভাগাড় জয় দিয়ে শুরু করলো মরগান-সাকিবদের কলকাতা বকশীগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ দুধ, ডিম ও মাংস বিক্রয় শুরু

আমাদেরকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে খালেদা জিয়া ও মওদুদরা কি থাকতে পেরেছেন? মাহজাবিন খালেদ বেবি এমপি

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৮ জুন, ২০১৭
  • ১৫৬১ জন সংবাদটি পড়ছেন

বিশেষ প্রতিনিধি ঃ

২০০৫ সালে ক্ষমতায় থাকার সময় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দমনের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য মাহজাবিন খালেদ।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বাড়ির প্রসঙ্গে মাহজাবীন বলেন, মওদুদ নিজেও আইনজীবী। নিজেই মামলা পরিচালনা করেছেন। তার সাথে ফাইট করে অন্য কোনো আইনজীবীর মামলা জেতা রীতিমত চ্যালেঞ্জ। তিনি নিজেই মামলার রিট করে হেরে গেছেন। কিন্তু  সেটা এখন তিনি মানতে পারছেন না। আবার বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়া তার বাড়ির সামনে গিয়ে নাটক করে এসেছেন। এই নাটক জনগন বোঝে।

সাবেক  সেনাপ্রধান ও মুক্তিযুদ্ধে ‘কে’ ফোর্সের অধিনায়ক খালেদ মোশারফের মেয়ে বলেন, ‘দমন-পীড়ন আওয়ামী লীগ সরকার করে না। দেশের আপামর জনতার দল আওয়ামী লীগ। দমন-পীড়নের রাজনীতিতো করেছে খালেদা জিয়া নিজেই। আমি ব্যক্তিগতভাবে খালেদা জিয়ার দমনের শিকার হয়েছি।

তিনি বলেন, আমার বাবা জেনারেল খালেদ মোশারফ একজন মুক্তিযোদ্ধা ও আর্মি অফিসার ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে ‘কে’ ফোর্সের অধিনায়ক খালেদ মোশারফের স্ত্রী হিসেবে আমার মাকে সরকার যে বাড়ি প্রদান করে, বেগম খালেদা জিয়া তার শাসনকালে একের পর এক প্রতিহিংসামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন, ২০০৫ সালে শাসনামলে খালেদা জিয়ার বোনের ছেলে মাইক্রোবাসে করে গুন্ডা ভাড়া করে এনে আমার মাকে বাড়ি খালি করার জন্য হুমকি দেয়। শুধু হুমকি দিয়েই ক্ষান্ত হননি। আমাদেরকে সে বাড়ি  থেকে অবৈধভাবে বের করে দিয়েছেন। না কোনো আদালতের আদেশ ছিল, না কোনো সরকারি কিংবা আমলাতান্ত্রিক জটিলতা। সম্পূর্ণ গুন্ডামি করে সন্ত্রাসীদের মত এসে আমাদের বাড়ি দখল করে নেয়।

মাহজাবিন খালেদ বলেন, এটিই কর্মফল। সৃষ্টিকর্তা দুনিয়াতে বিচার  দেখান। আপনি আজকে যদি কারো সাথে অন্যায় করেন তাহলে জীবনের কোনো না কোনো সময় তাকে সাজা ভোগ করতে হবে। আমাদেরকে বাড়ি  থেকে বের করে দিয়ে খালেদা জিয়া কি থাকতে পেরেছেন? তাকে ক্যান্টনমেন্ট ছাড়তে হয়েছে এবং গতকাল ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদকেও তার বাড়ি ছাড়তে হয়েছে। কারণ আল্লাহর বিচার, এর উপরে কিছুই করার নাই।

আওয়ামী লীগ সরকার কাউকে উচ্ছেদ করেনি দাবি করে তিনি আরও বলেন, মওদুদের দখল করা বাড়িটি ছিল রাষ্ট্রীয় সম্পত্তি। রাষ্ট্র মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে সে জায়গাটি দখল নিয়েছে। এখন মওদুদ বলছেন তাকে সন্ত্রাসী কায়দায় বের করে দেওয়া হয়েছে। তিনি রাজনীতির প্রতিহিংসার শিকার। কিন্তু উনার মত মত বিজ্ঞ একজন আইনজীবী যখন এসব কথা বলে তখন জনগণের কাছে কৌতুক মনে হয়। খালেদা জিয়া যখন রাস্তায় নেমে এমন কৌতুক করে তখন সারাদেশের মানুষ তাকে নিয়ে হাসে। তাই এসব করে লাভ হবে না। দেশের জনগণ এখন অবগত।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102