শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৫২ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
বকশীগঞ্জে যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার বকশীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি বাতিল! দুই মামলায় রাশেদ চিশতির জামিন দেওয়ানগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুরের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানালেন অধ্যাপক সুরুজ্জামান বকশীগঞ্জে পৌর আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের সংর্ঘষ ।। আহত অর্ধশতাধিক বকশীগঞ্জে নারী ও শিশু ধর্ষণ প্রতিরোধে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত দেওয়ানগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুর বকশীগঞ্জে এসডিজি অর্জনে জেলা নেটওয়ার্কের ষান্মাসিক সভা অনুষ্ঠিত সরিষাবাড়ীতে পুকুরে ডুবে ভাই বোনের মৃত্যু বকশীগঞ্জে ইলিশ রক্ষায় নিজেই মাঠে নামলেন ইউএনও মুনমুন জাহান লিজা

ইসলামপুরে পৌরসভার ত্রাণের চাউল উত্তোলন ॥ ডিসি বরাবরে অভিযোগ

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৬ মে, ২০২০
  • ৩৮৯ জন সংবাদটি পড়ছেন

রোকনুজ্জামান সবুজ, জামালপুরঃ জামালপুরের ইসলামপুর পৌরসভার নামে সরকারি বরাদ্দ ত্রাণের চাউল উত্তোলনে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে প্রকাশ, ক্ষমতা অপব্যবহারে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে দুই ভাইস চেয়ারম্যান জিও মাধ্যমে ওই চাউল উত্তোলন করেছেন। এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন পৌরবাসী।
অভিযোগ সূত্রে জনা যায়, মহামারী করোনা ভাইরাস সঙ্কটে সরকার দরিদ্র অসহায় ‘দিন আনে, দিন খায়’ এমন পৌর এলাকার মানুষের জন্য চাউল বরাদ্দ করে। সরকারের বরাদ্দকৃত চাউল পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের সেখকে উত্তোলন না করতে দিয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এস এম জামাল আব্দুন নাসের বাবুলের নেতৃত্বে ক্ষমতার অপব্যবহার করে উপজেলা পরিষদের পুরুষ ও মহিলা দুই ভাইস চেয়ারম্যান জিও মাধ্যমে অনিয়মতান্ত্রিকভাবে চাউল উত্তোলন করেছেন।
অভিযোগপত্রে উল্লেখ্য, গত ৪ এপ্রিল ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ পৃথক দুইটি জিও মাধ্যমে পৌর এলাকায় সরকারি বরাদ্দকৃত ত্রাণের ৫ মেট্রিক টন চাউল উত্তোলন করেন। একই দিন ভাইস চেয়ারম্যান রোজিনা আক্তার চায়না ৩ মেট্রিক টন চাউল উত্তোলন করেন। একইভাবে তিনি ৮ এপ্রিল পৃথক দুইটি জিও মাধ্যমে ৪ মেট্রিক টন চাউল, ১৭ এপ্রিল ৪.৫৩ মেট্রিক টন চাউল, এবং ১৯ এপ্রিল ১ মেট্রিক টন চাউল উত্তোলন করেন।
এছাড়া আর প্রায় ১০ মেট্রিক টন চাউল জিও মাধ্যমে পৌর মেয়রের অজান্তেই ওই চেয়ারম্যানরা উত্তোলন করেন। এভাবেই সর্বমোট ২৭.৫ মেট্রিক টন চাউল উত্তোলন করা হয়।

জেলা প্রশাসক বরাবর প্রেরিত ওই অভিযোগপত্রে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানরা পৌরসভার সরকারি বরাদ্দের চাউল উত্তোলন করতে পারে কি-না, কে তাদের মাস্টাররোল তৈরি করে দিল এবং কোথায় তারা চাউল বিতরণ করেছেন, এসব বিষয়াদির সুষ্ঠু তদন্তের দাবি করা হয়েছে।
অভিযোগপত্রের সূত্র ধরে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, ইতোমধ্যে পৌর এলাকায় সরকারি বরাদ্দকৃত ত্রাণের ১১ মেট্রিক টন চাউল উত্তোলন করেছেন ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ। একইভাবে ২৫ মেট্রিক টন চাউল উত্তোলন করেছেন ভাইস চেয়ারম্যান রোজিনা আক্তার চায়না।
ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ জানান, ‘আমার নামে উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও, পিআইও ও খাদ্য কর্মকর্তা ১১ মেট্রিক টন চাউল দিয়েছেন। চাউলগুলো পৌরসভার বরাদ্দ কি-না, তা আমি জানি না। তবে চাউল উত্তোলন করে পৌর এলাকায় বিতরণ করেছি। এছাড়া কিছু চাউল পৌর এলাকার বাহিরেও বিতরণ করেছি।’
ভাইস চেয়ারম্যান রোজিনা আক্তার চায়না চাউল উত্তোলনের কথা স্বীকার করে জানান, ‘আমি পৌর এলাকায় চাউল বিতরণ করেছি।’
ইসলামপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের সেখ জানান, ‘পৌরসভার নামে বরাদ্দ কোনোক্রমেই উপজেলা চেয়ারম্যানরা উত্তোলন করতে পারেন না। কিন্তু তারা কীভাবে চাউল উত্তোলন করে কোথায় রাখছে সেটাও আমি জানি না।’
উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এস এম জামাল আব্দুন নাসের বাবুল তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, ‘উন্নয়নমূল কাজে পৌর মেয়রের অনিয়ম-দুর্নীতির কথা বলায় এখন আমার বিরুদ্ধে সে অপপ্রচার চালাচ্ছে।’ এছাড়া চাউল বিতরণের সময় মেয়রও আমাদের সাথে ছিল।’

ইসলামপুর পৌর আ’লীগের সভাপতি নূর ইসলাম নূর জানান, ‘স্থানীয় আ’লীগের নেতাদের ত্রাণ কাজে সম্পৃক্ত রাখার কথা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা থাকলেও এখানে তা মানা হচ্ছে না।’ আমরা জানিই না কোথায় কখন কীভাবে ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে।’
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের মোবাইলফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি কল রিসিভ না করায় তাঁর মন্তব্য পাওয়া যায়নি।
জামালপুর জেলা প্রশাসক মো. এনামুল হক জানান, ‘আমি বিষয়টি জানি না। অভিযোগ পেলে তা তদন্ত করে বিধিমত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102