রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৪৪ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English

জান যাক, ত্রান চাই, বকশীগঞ্জে ত্রানের গাড়ী দেখলেই ছুটাছুটি

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২০
  • ৬৯২ জন সংবাদটি পড়ছেন
ত্রাণ বিতরণকালে ছবি

স্টাফ রিপোর্টারঃ জান যাক, তারপরেও ত্রান চাই। কিসের করোনা, করোনা আমরা মানি না, চাল দেন এমনটাই চলছে বকশীগঞ্জে সর্বত্র।
সোমবার বকশীগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে কর্মহীন মানুষদের মাঝে খাদ্য সহয়তা দিতে গেলে অসংখ্য মানুষ ভীর জমায়। এসময় পরিস্থিতি সামাল দিতেই হিমসিম খায় পৌর প্রশাসন।
সরকারী ও বেসরকারী প্রশাসন পর্যাপ্ত খাদ্য সহযোগিতা দিলেও এই হাহাকার যেন থামছেই না। ত্রানের গাড়ী দেখলেই ছুটাছুটি শুরু করে। ভীর জমায় গাড়ীর কাছে, এদের কারণেই সুষ্ঠুভাবে ত্রান বিতরণেও কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে। তালিকাভুক্ত ১২০জনকে ত্রান না দিয়েই ফেরত আসতে বাধ্য হয়। এরা পরবর্তিতে পৌর কার্যালয় থেকে ত্রান নিতে পারবে।
বকশীগঞ্জ পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর জানান, ২টি ওয়ার্ডে সাড়ে ৩০০ পেকেটি নিয়ে যাওয়া হয়। এতে সীমারপাড়ে নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে সুশৃঙ্খলভাবে ত্রান দেওয়া সম্ভব হলেও উপজেলা রোডে শতেক খানে ত্রান দিলে বাকীরা হুমরি খেয়ে পড়ে।
করোনা সংক্রমন রোধে ত্রাণ কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়। যাদের তালিকা রয়েছে তারা বকশীগঞ্জ পৌরসভা থেকে নির্ধারিত স্লিপ জমা দিয়ে ত্রান নিতে পারবে জানান তিনি।
করোনা শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত পৌরসভার পক্ষ থেকে সাড়ে ৪ হাজার পরিবারের মাঝে ত্রান বিতরণ করা হয়েছে বলেও জানান পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর।
বকশীগঞ্জ পৌরসভায় মোট ভোটারের সংখ্যা ৩০ হাজারের উপরে জনসংখ্যা প্রায় ৫০ হাজার।
এ পর্যন্ত সরকারীভাবেই ১৩৯ মেট্রিক টন চাউল ও নগদ ৬ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা বিতরণ করেছে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন। এতে উপরকার ভোগীর সংখ্যা প্রায় ১৪ হাজার।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102