মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ১১:৫৫ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
দুই মামলায় রাশেদ চিশতির জামিন দেওয়ানগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুরের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানালেন অধ্যাপক সুরুজ্জামান বকশীগঞ্জে পৌর আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের সংর্ঘষ ।। আহত অর্ধশতাধিক বকশীগঞ্জে নারী ও শিশু ধর্ষণ প্রতিরোধে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত দেওয়ানগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুর বকশীগঞ্জে এসডিজি অর্জনে জেলা নেটওয়ার্কের ষান্মাসিক সভা অনুষ্ঠিত সরিষাবাড়ীতে পুকুরে ডুবে ভাই বোনের মৃত্যু বকশীগঞ্জে ইলিশ রক্ষায় নিজেই মাঠে নামলেন ইউএনও মুনমুন জাহান লিজা জামালপুরে সাত দিনব্যাপী পুলিশ সপ্তাহ শুরু বকশীগঞ্জে উপজেলা পরিষেদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

বকশীগঞ্জে মোট বরাদ্দ ৭৪ মেঃ টন চাউল ও ২ লক্ষ ৮৮ হাজার টাকা, আরও বরাদ্দের দাবী

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১২ এপ্রিল, ২০২০
  • ৪৭৪ জন সংবাদটি পড়ছেন

স্টাফ রিপোর্টারঃ জামালপুরের সারা জেলায় ৮৪৪ মেট্রিক চাউল বরাদ্দ করা হলেও বকশীগঞ্জের মত দরিদ্র একটি উপজেলার কপালে জুটেছে মাত্র ৭৪ মেট্রিকটন চাউল। আর টাকার হিসাবে সারা জেলায় ৩৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা বরাদ্দ থেকে বকশীগঞ্জ পেয়েছে মাত্র ২ লক্ষ ৮৮ হাজার টাকা। আর শিশু খাদ্যে ৪ লক্ষ টাকা বরাদ্দের বিপরীতে বকশীগঞ্জের শিশুদের ভাগ্যে জুটেছে মাত্র ৪০হাজার টাকা।
বকশীগঞ্জ উপজেলা বাস্তাবায়ন কর্মকর্তা অফিস ও জেলা দুর্যোগ ও ত্রান কর্মকর্তার অফিস সুত্রে এ তথ্য পাওয়া যায়।
জামালপুরের জেলার অন্যান্য উপজেলার তুলনায় সীমান্তবর্তী এই বকশীগঞ্জ উপজেলাতে বেশিরভাগ গরীব ও অসহায় মানুষ বাস করে। এই উপজেলা রয়েছে প্রায় ১০ হাজারের মত পাহাড়ী অধিবাসী, যারা সবাই দরিদ্র সীমার নিচে বসবাস করে। এছাড়া এখানে রয়েছে জেলার একমাত্র স্থল বন্দর কামালপুর স্থল বন্দর। এই স্থল বন্দরে প্রায় ১০ হাজার মানুষ দৈনিক মজুরীর ভিত্তিতে কাজ করে থাকে।

বৈশ্বিক মহামারী করোনার কারণে কামালপুর স্থল বন্দর বন্ধ থাকায় এখানকার প্রতিটি শ্রমিকেরও কাজ বন্ধ রয়েছে। ফলে এই এলাকায় শ্রমিকদের পরিবারে এখন চলছে খাবারের জন্য হাহাকার। এভাবে চলতে থাকলে খুব কম সময়ের মাধ্যেই মানবিক বিপর্যয় দেখা দিবে।
বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ.স.ম জামশেদ খোন্দকার এসব ত্রাণ সুষ্ঠুভাবে বন্টন ও তদরকির কারণে সঠিকভাবে বিতরণ সম্পন্ন হলেও এখনো বেশিরভাগ দরিদ্র জনগোষ্ঠিই রয়েছে অতি কষ্টে। এভাবে চলতে থাকলে কম সময়ের মধ্যেই দেখা দিবে মানবিক বিপর্যয়। তাই মানবিক বিপর্যয় রোধে বকশীগঞ্জে ত্রাণের পরিমান বৃদ্ধির দাবী জানিয়েছে এলাকার দরিদ্র পরিবার গুলো।

কম ত্রান বরাদ্দের বিষয়ে বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান, এটি বন্টন হয় মুলত জনসংখ্যার উপর ভিত্তি করে, সে কারণে আমাদের উপজেলায় বরাদ্দের পরিমান কম হয়।

এ বিষয়ে জেলা ত্রান ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা নায়েব আলী জানান, আগামী বরাদ্দে কামালপুর স্থল বন্দরের কথা বিবেচনা করে ত্রান বরাদ্দের পরিমান বৃদ্ধি করা হবে।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102