শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৩৫ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English

করোনাঃ সামাজিক নিরাপত্তা ও ‍দুরুত্ব নিশ্চিত করতে রাস্তা বন্ধ

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২০
  • ৬৯১ জন সংবাদটি পড়ছেন

স্টাফ রিপোর্টারঃ  বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমন ঠেকাতে সামাজিক দুরুত্ব নিশ্চিত করতে নিজেদের রাস্তা বন্ধ করে বাড়ী থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বকশীগঞ্জের মানুষ।  হোম কোরায়ারেন্টান নিশ্চিত করেতে অনেকেই মাথা ন্যাড়াও করেছেন।

এ কারণে বাড়ীতে কেউই যাতেও পারছে না বা বাড়ীর লোকজন অন্য জায়াগাতেও যেতে পারছে না।

শনিবার থেকে বকশীগঞ্জে এমন দৃশ্যই দেখা গেছে।

সরজমিনে দেখা যায়, বকশীগঞ্জ শহরের রাস্তায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা থাকায় তাদের চোখ ফাঁকি দিতে এই রাস্তাটি ব্যবহার করে থাকে ফলে আকন্দবাড়ীসহ বেশি কয়টি বাড়ীর করোনা ঝুকি বেড়ে গেছে। শুধু তাই নয় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কড়াকড়িতে এসব রাস্তা দিয়ে ভ্যান-রিক্সাসহ সিএনজি মধ্যরাত পর্যন্ত চলাচল করে থাকে।

নিজেদের ও গ্রামবাসীদের করোনার সংক্রমন থেকে রক্ষা পেতে স্থানীয় বাসিন্দাদের  মতামত নিয়ে করোনাকালীন সময়ের জন্য রাস্তাটি সাময়িক বন্ধ করা হয়েছে। করোনা ঝুকি কমে গেলে আগের মতই ব্যবহার করার জন্য খুলে দেওয়া হবে বলে জানান এডভোকেট সোহেল রানা আকন্দ।

প্রসঙ্গত, জামালপুরের বকশীগঞ্জ ও দেওয়ানগঞ্জ ভারতীয় সীমান্তবর্তী হওয়ায় এই দুই উপজেলায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমনের ঝুঁকি অনেকটা বেশি। তবে সারা জামালপুরসহ এই ঝুকিপুর্ণ দুই উপজেলাতেই করোনার সংক্রমন রোধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।


প্রয়োজন ব্যতিত বাড়ী থেকে বের হলেই পড়তে হচ্ছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর জেরার মুখে। রাস্তায় টহল দিচ্ছে সেনাবাহিনী ও পুলিশ।

করোনা ভাইরাস রোধে ইত্যিমধ্যেই সাপ্তাহিক হাট বার বন্ধ করা হয়েছে। বন্ধ রয়েছে জেলার একমাত্র স্থলবন্দর কামালপুর স্থল বন্দর ও পর্যটন কেন্দ্র লাউচাপড়া বিনোদন কেন্দ্র।

এদিকে এই জেলার ১৩জনের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে আইডিসিইআর পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৭টি উপজেলায় কারোর শরীরের করোনা ভাইরাসের লক্ষণ পাওয়া যায়নি।

 

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102