করোনা সংক্রামন মোকাবেলায় বকশীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন

স্টাফ রিপোর্টারঃ গত কয়েকদিনে করোনা মোকাবেলায় বকশীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ২৪ ঘন্টায় রয়েছে পাশে। করোনা সংক্রামন রোধে ফেব্রুয়ারী মাসের ১ম থেকেই জামালপুরের একমাত্র স্থল বন্দর কামালপুর স্থল বন্দরের বসানো হয়েছিল মেডিকেল টিম। এই টিম ভারতীয় ট্রাক চালকদের থার্মাল স্কেনার দিয়ে পরীক্ষা করে দীর্ঘ দেড় মাস। ভারতীয় পক্ষ থেকে সীমান্ত করাকরি বিধি নিষেধ হওয়ার স্থল বন্দরের আমদানী-রপ্তানি স্থবির হলেও উপজেলা প্রশাসনের কার্যকরী ভুমিকার কারণে দ্রব্য মুল অনেকটাই নিয়ন্ত্রনে।
পরবর্তী সময়ে করোনার সংক্রামন রোধে জেলার একমাত্র বিনোদন কেন্দ্রও বন্ধ করে দেয় উপজেলা প্রশাসন।
রাত ৮টার পর বাজারের সকল দোকানপাট, হোটেল-রোস্তরা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ জারি করা হয়।
করোনার সংক্রামন রোধে হাসপাতাল, উপজেলা নির্বাহী কার্যালয়ের, উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে, পৌর কার্যালয়ে, থানাসহ গুরুত্বপুর্ন স্থানে হাত ধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপন করা হয়।
করোনাকে কেন্দ্র করে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মুল্য স্থিতিশীল রাখতে একের পর এক চালানো হয় ভ্রাম্যমান আদালত। টানা ৩দিন চলছে এই ভ্রাম্যমান আদালতের কাজ।
এছাড়া ভ্রাম্যমান আদালত ছাড়াও সাধারন মানুষের সচেতনতা বৃদ্ধিতে বিভিন্ন জায়গায় পরামর্শ সভা করছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ.স.ম জমশেদ খোন্দকার।

করোনা সংক্রামন রোধে প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে একটি কমিটিও করে দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। এতে উপজেলা পর্যায়ে একজন কর্মকর্তাসহ ১জন করে সাংবাদিক রাখা হয়েছে।

এ পর্যন্ত ১৪জন বিদেশ ফেরতকে কোয়ারেন্টাইনে রাখে নিভিরভাবে পর্যাবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের এসব জনকল্যান মুলক কাজে সহযোগিতা করছেন বকশীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর, বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ প্রতাপ নন্দীসহ স্থানীয় সাংবাদিক মহল।
এদিকে করোনা ও কালোবাজারী প্রতিরোধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যকরি ভুমিকার কারণে মানুষ খুব খুশি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

     এই বিভাগের আরো খবর

Site Statistics

  • Users online: 0 
  • Visitors today : 407
  • Page views today : 508
  • Total visitors : 170,886
  • Total page view: 231,486
ব্রেকিং নিউজঃ