বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:৫২ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
বকশীগঞ্জে ধর্ষনের শিকার পোষাক শ্রমিক, ধর্ষক আটক বকশীগঞ্জে যৌন উত্তেজনা বৃদ্ধির ওষুধ তৈরী ও বিক্রির দায়ে ১ জনের জেল শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করলেন মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর বকশীগঞ্জ পৌর মানবাধিকার কমিশনের কমিটি অনুমোদন বকশীগঞ্জে বাংলাদেশ সেল ফোন রিপেয়ার ট্যাকনেশিয়ান এসোসিয়েশনের পরিচিতি সভা কামালপুর ইউনিয়নে মানবাধিকার কমিশনের কমিটির অনুমোদন বকশীগঞ্জে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ২টি বাল্য বিয়ে পন্ড, কনের বাবার জরিমানা বকশীগঞ্জে ট্রাকের চাপায় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের মৃত্যু বকশীগঞ্জে বিট পুলিশিং সচেতনতায় পথসভা অনুষ্ঠিত বকশীগঞ্জে ফেব্রুয়ারীতেই পাচ্ছে করোনার টিকা

বকশীগঞ্জে পুলিশ হয়রানীর প্রতিবাদে বিশাল মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ১১০৪ জন সংবাদটি পড়ছেন

স্টাফ রিপোর্টারঃ  জামালপুরের বকশীগঞ্জে ভাড়াটে মোটরসাইকেল চালক আবু বকর নুরী হত্যা মামলায় আইরমারী গ্রামের ১০ জন নির্দোষ ব্যক্তিকে জড়ানো ও গ্রামবাসীদের পুলিশ হয়রানির প্রতিবাদে বিশাল মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী।

২৩ ফেব্রুয়ারী রবিবার দুপুরে জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার আইরমারী গ্রামে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এলাকাবাসীর উদ্যোগে দুই সহস্রাধিক মানুষ বেলা ১১ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত বকশীগঞ্জ-দেওয়ানগঞ্জ সড়কের আইরমারী এলাকায় ওই মানববন্ধনে অংশ নেয়।

মানববন্ধন শেষে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাবেক অধ্যক্ষ হেলাল উদ্দিন খান, শহিদুর রহমান মাষ্টার, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি খবির উদ্দিন খোকা, মেরুরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জেহাদ,সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল হামিদ, সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লিয়াকত হোসেন লাজু, প্রমুখ।প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, হত্যাকান্ডকে পুজি করে পুর্ব শত্রুতার জের ধরে আইরমারী গ্রামের গোলাম মোহাম্মদ কালু গাজীর ছেলে আবদুল হাকিম তার মামা আবু বকর নুরী হত্যা মামলাকে পুজি করে আইমারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুর রহমান মাষ্টার ও মেরুরচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি খবির উদ্দিন খোকাসহ ১০ জনের একটি নামের তালিকা পুলিশের কাছে দেয়।
পুলিশ তাদের দেওয়া তালিকা অনুযায়ী ইসলামপুর থানা পুলিশ মামলার সঠিক তদন্ত না করে উল্টো আইরমারী গ্রামের মোশারফ হোসেন, ইজ্জত আলী , মুছা আলী ও জয়নাল আবেদিনকে গ্রেপ্তার করেন এবং মুুছা আলীর কাছ থেকে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী নেন।

৪ মাস পর কারাগার থেকে জামিন পেয়ে মুছা আলী মানববন্ধনে অংশ নিয়ে সাংবাদিকদের জানান, তাকে নির্যাতন করে জোরপূর্বক জবানবন্দী নিয়েছে পুলিশ। ওই জবানবন্দীতে শহিদুর রহমান মাস্টার ও তার ভাই খবির উদ্দিন খোকা মাষ্টারের নাম বলতে বাধ্য করা হয়।

এলাকাবাসী ও বক্তাদের দাবি মামলাটির সঠিক তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত খুনিকে গ্রেপ্তার করে এজাহার বহিভূত আসামিদের দায়মুক্তির জন্য প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশের আইজিপির হস্তক্ষেপ কামনা করেন। তাই তারা সঠিক তদন্তের স্বার্থে পিবিআই অথবা সিআইডিতে মামলাটি স্থানান্তরের দাবি জানান।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ২ জুলাই সন্ধ্যায় বকশীগঞ্জ পৌর এলাকার মালিরচর গ্রামের ভাড়াটে
মোটরসাইকেল চালক আবু বকর নুরী পাশ্ববর্তী ইসলামপুর উপজেলার টুংরা পাড়া বন্দে আলী ব্রিজের নিকট তাকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এই হত্যায় পরদিন নিহতের স্ত্রী তাহমিনা বেগম বাদী হয়ে একজন নামীয় ও অজ্ঞাত কয়েকজন আসামি দিয়ে ইসলামপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102