শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:০৪ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English

নয়াপাড়া গ্রামকে নিরক্ষর মুক্ত ঘোষনা করলেন পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ৩২৬ জন সংবাদটি পড়ছেন

স্টাফ রিপোর্টারঃ জামালপুরের বকশীগঞ্জে উপজেলার পৌর এলাকার ১নং ওয়ার্ডের নয়াপাড়া গ্রামকে নিরক্ষর মুক্ত ঘোষনা করলেন বকশীগঞ্জ পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর।

২১ ফেব্রুয়ারী ‍দুপুরে তিনি ্ ঘোষনা দেন।

জানাযায়, দুই মাস আগেও যে গ্রামে নিরক্ষরের কলঙ্ক ছিল। দলিল লেখা সহ কোন কাজ করতে হলে টিপসই দিতে হতো। আর সেটাই মেনে নিতে পারছিলেন না ওই গ্রামের মোসাদ্দেকুর রহমান মানিক ।

তাই তিনি সিদ্ধান্ত নিলেন যেকোন মূল্যে এই গ্রামকে নিরক্ষরমুক্ত করা হবে। যেই ভাবা সেই কাজ। নিজেই উদ্যোগ নিলেন নিরক্ষরমুক্ত গ্রাম করার এবং সফল হয়েছেন । মাত্র দুই মাসের মাথায় সেই গ্রাম এখন নিরক্ষর মুক্ত।

জামালপুরের বকশীগঞ্জ পৌর এলাকায় অবস্থিত এই গ্রামের নাম মালিরচর নয়াপাড়া গ্রাম।

এই গ্রামের প্রতিটি মানুষ এখন অক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন। কাউকে কোন কাজের জন্য টিপসই দিতে হয় না। এই গ্রামকে নিরক্ষর মুক্ত করার জন্য যিনি উদ্যোগ ও পরিশ্রম করেছেন তিনি মোসাদ্দেকুর রহমান মানিক।

বকশীগঞ্জ খয়ের উদ্দিন আলিম মাদরাসার প্রভাষক তিনি। গত ১১ ডিসেম্বর থেকে এই গ্রামের ২৫০ জন নারী-পুরুষকে অক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন করার জন্য তিনি রাত্রিকালীন লেখা পাড়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। গ্রামের শিক্ষিত তরুনদেরকে উদ্বুদ্ধ করে গ্রামের নিরক্ষর মানুষদের অক্ষর দান কার্যক্রম শুরু করা হয়। মোসাদ্দেকুর রহমান মানিকের এই কার্যক্রমকে স্বাগত জানান অনেকেই। মাত্র দুই মাসের মাথায় এই গ্রামের সকল নিরক্ষর ব্যক্তি স্বাক্ষর দেওয়ার উপযোগী হয়ে উঠে। এখন সকলেই নিজ নাম, নিজ গ্রাম সহ পূর্ণ ঠিকানা লিখতে পারেন।

এমন উদ্যোগ নেওয়ায় নিজ এলাকায় প্রশংসায় ভাসছেন মোসাদ্দেকুর রহমান মানিক ও তার সহযোগী তরুনরা। শুধু তাই নয় নিরক্ষর মুক্ত করার পাশাপাশি গ্রামবাসীর উদ্যোগে এই গ্রামের চার জন ভিক্ষুককে পুনর্বাসন করা হয়েছে।

এই মাসেই মালিরচর নয়াপাড়া গ্রামকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিরক্ষরমুক্ত ঘোষণা দেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে নিরক্ষর মুক্ত গ্রাম প্রতিষ্ঠার উদ্যোক্তা ও বকশীগঞ্জ খয়ের উদ্দিন আলিম মাদরাসার প্রভাষক মোসাদ্দেকুর রহমান মানিক বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেই আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি। গ্রামের তরুনদের উদ্বুদ্ধ করে সকলের সহযোগিতায় এই গ্রামকে নিরক্ষর মুক্ত করতে পেরেছি।এই কাজে সফল হতে পেরে আমি গর্ববোধ করছি।

প্রতিটি গ্রামে এই সামাজিক আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ুক এমনটাই আশা করছেন সুুধীমহল।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102