বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০২:২৪ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
মাদার তেরেসা গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন প্যানেল মেয়র সেলিনা আক্তার বকশীগঞ্জে যুবদলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত ধানের শীষের সাথে মিশে আছে যার জীবন, সেইতো আব্দুল্লাহ আল সাফি লিপন বকশীগঞ্জে রাতে চালু থাকা ড্রেজারে বালু উত্তোলন বন্ধ করলেন ওসি বকশীগঞ্জে পুজা মন্ডব প‌রিদর্শন ও নগদ অর্থ সহায়তা দিলেন মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর বকশীগঞ্জে মধ্যবয়সী নারী ধর্ষন, আটক-১ বকশীগঞ্জে যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার বকশীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি বাতিল! দুই মামলায় রাশেদ চিশতির জামিন দেওয়ানগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুরের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানালেন অধ্যাপক সুরুজ্জামান

বাবুল চিশতি শ্যোন এরেস্ট

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২০
  • ১১৮৩ জন সংবাদটি পড়ছেন

স্টাফ রিপোর্টারঃ অর্থ আত্মসাতের মামলায় ফারমার্স ব‌্যাংকের নিরীক্ষা কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক চিশতীকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

ফারমার্স ব্যাংক থেকে (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক) জালিয়াতির মাধ্যমে ১১৪ কোটি ৩৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে বাবুল চিশতির বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কেএম ইমরুল কায়েশ শুনানি শেষে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করেন। ফলে বাবুল চিশতি এ মামলায় শ্যোন এরেস্ট হবেন।

গত ১২ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন আসামি বাবুল চিশতীকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করেন।

গত বছর ১৭ অক্টোবর সংস্থার ঢাকা-১ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে বাবুল চিশতীসহ আটজনকে আসামি করে মামলা করেন দুদকের উপ-পরিচালক সামছুল আলম।

মামলার অপর আসামিরা হলেন-বাবুল চিশতীর তার ভাই মাজেদুল হক ওরফে শামীম চিশতী, ব্যাংকটির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এ কে এম এম শামীম, শাবাবা অ্যাপারেলসের মালিক মো. আবদুল ওয়াদুদ ওরফে কামরুল, এডিএম ডাইং অ্যান্ড ওয়াশিংয়ের মালিক রাশেদ আলী, তনুজ করপোরেশনের মালিক মো. মেফতাহ ফেরদৌস, মোহাম্মদ আলী ট্রান্সপোর্টের মালিক মো. গোলাম সারোয়ার ও ক্যানাম গ্রোডাক্টসের মালিক ইসমাইল হাওলাদার।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলার সাত আসামি এখনো পলাতক রয়েছেন। পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে বলে জানান তদন্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন।

এজাহারে বলা হয়, আসামিরা ক্ষমতার অপব্যবহার, দুর্নীতি ও অনিয়মের মাধ্যমে ব্যাংক থেকে ৮৮ কোটি ১৬ লাখ ১৭ হাজার টাকা তুলে নিয়ে আত্মসাৎ ও পাচার করেছেন। সুদসহ ওই টাকা বর্তমানে দাঁড়িয়েছে ১১৪ কোটি ৩৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা। তাই আসামিদের বিরুদ্ধে ওই পরিমাণ অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102