বকশীগঞ্জে বেশি মূল্যে লবণ বিক্রি, ব্যবসায়ীকে জরিমানা

বক্তব্য রাখছেন ওসি হযরত আলী

স্টাফ রিপোর্টারঃ জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলায় লবণ নিয়ে গুজব তৈরি নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গেছে। লবণের মূল্য বৃদ্ধি হয়েছে এবং মজুদ শেষ হয়ে গেছে এমন গুজব ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লবণ কেনার জন্য জনসাধারণ হুমড়ি খেয়ে পড়ে। অনেক ব্যবসায়ী এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে লবণের মূল্য বৃদ্ধি করে হাতিয়ে নেয় লাখ লাখ টাকা।

১৯ নভেম্বর দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত দোকানগুলোতে মানুষের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে। ৩৫ টাকার লবণ কয়েকজন ব্যবসায়ী ১০০ টাকা থেকে ১২০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করেছেন।

এ খবরে বিকালেই অভিযানে নামেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আ. স. ম জামশেদ খোন্দকার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাঈদা পারভীন, বকশীগঞ্জ পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর ও বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হযরত আলী ।

বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হযরত আলী সারমারা বাজারসহ বিভিন্ন বাজারে সাধারন মানুষকে সচেতনতা মুলক বক্তব্য রাখেন।

বকশীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর বকশীগঞ্জ পৌর শহরে বিভিন্ন বাজারে পরিদর্শনসহ সাধারন মানুষ ও ব্যবসায়ীদের সাথে মত বিনিময় করেন।

উপজেলা বাজার পরিদর্শন করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সব ব্যবসায়ীকে সতর্ক করে দেন এবং নির্ধারিত মূল্যে লবণ বিক্রির নির্দেশ দেন। এছাড়াও অনেক ব্যবসায়ীর বাড়িতে অবৈধ মজুদ আছে কিনা তল্লাশি চালানো হয়।

এদিকে মেরুরচর ইউনিয়নের জব্বারগঞ্জ বাজারে ১৯ নভেম্বর বিকালে অভিযান চালিয়ে অতিরিক্ত মূল্যে লবণ বিক্রি করায় মমিজল হক নামে এক ব্যবসায়ীকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী হাকিম সাঈদা এই জরিমানা আদায় করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আ. স. ম. জামশেদ খোন্দকার জানান, কৃত্তিম সংকট তৈরি করে কিংবা গুজব ছড়িয়ে লবণের মূল্য বৃদ্ধির কোন সুযোগ নেই। উপজেলা প্রশাসন সার্বক্ষণিক বাজার মনিটরিং করছে, কেউ সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

     এই বিভাগের আরো খবর
ব্রেকিং নিউজঃ