মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:৩৫ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
বকশীগঞ্জ প্রেসক্লাবে অতিরিক্ত সচিব শাওলী সুমনের রূহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল বক‌শীগঞ্জ উপ‌জেলা বিএন‌পি`র আহ্বায়ক ক‌মি‌টির প‌রি‌চি‌তি সভা বকশীগঞ্জ ২ হাজার ভারতীয় জাল রুপিসহ আটক ৭ বকশীগঞ্জে শিশু হত্যা, পিতার মৃত্যুদণ্ড বকশীগঞ্জ বিএনপির সংবাদ সম্মেলন, কমিটির আত্ম প্রকাশ শিক্ষা ও গবেষণায় এগিয়ে নেয়ার অঙ্গীকারে বশেফমুবিপ্রবি’র বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন দলকে সুসংগঠিত করাই এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্চ… মানিক সওদাগর আরব সাগরে ভেঙে পড়লো ভারতীয় যুদ্ধবিমান, পাইলটের মৃত্যু বকশীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির কমিটি॥ মানিক-আহ্বায়ক, মতিন- সদস্য সচিব বকশীগঞ্জ পৌর বিএনপি ॥ প্রিন্স-আহ্বায়ক, গামা-সদস্য সচিব

বকশীগঞ্জে ছেলে নির্যাতনের বিচার পেতে দ্বারে দ্বারে ঘুরেছে মা

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৯
  • ১৬৯৯ জন সংবাদটি পড়ছেন

স্টাফ রিপোর্টারঃ জামালপুরের বকশীগঞ্জে কথিত এক সাংবাদিকের ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলায় নির্যাতনের পর কিশোর সন্তান জেলে থাকায় সন্তানহারা মায়ের কান্নায় ভিজে গেছে মাটি। সন্তানের ফিরে পেতে সমাজপতি আর আদালতের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে পরিবারটি।

স্থানীয় এক প্রভাবশালী সাংবাদিক শাহীন আল আমিনের মিথ্যা কুটচালে নির্যাতিত হওয়ার পরেও এখন জেলের ঘাটি টানছে জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার মেরুরচর ইউনিয়নের চিনারচর গ্রামের কিশোর উচ্চ মাধ্যমিক এর ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী মোস্তাইন বিল্লাহ রনি।


গত ১৭ সেপ্টম্বর বন্ধুদের সাথে স্থানীয় মেরুরচর বাজারে গেলে ওই সময় মেরুরচর গ্রামের এক মেয়েকে দিয়ে কৌশলে সাংবাদিক শাহিনের ষড়যন্ত্রে বাড়ীতে এনে সন্ধ্যা ৭টার সময় রনিকে বেঁধে রাখে। পরে রাতে রনির পিতা মাতার কাছে ছেলের মুক্তির বিনিময়ে ৪ লক্ষ টাকা দাবী করে শাহিন। অসহায় ও গরীব রনির বাবা টাকা দেওয়ার অপরাগতা প্রকাশ করার পর থেকে রাতভর রনিকে অমানুষিক নির্যাতন করে শাহিন সহ অন্যান্যরা।

নির্যাতনের চিকিৎসা দেওয়া হয় হাসপাতালে। হাসপাতালে ছাড়পত্র

মধ্যযুগীয় বর্বরিত নির্যাতনে একগ্লাস পানির জন্য পা ধরে কান্নাকাটি করেও তাকে পানি পর্যন্ত খেতে দেয়নি নির্যাতনকারীরা। নির্যাতনের বিষয়টি ধামা চাপা দেওয়ার জন্য পরদিন বয়স গোপন করে ওই সাথে জোরপুর্বক এফিডিভিটের মাধ্যমে বাল্য বিয়ে পড়ানো হয়।

এ অবস্থায় রনিকে ফেরত পেতে পরিবারের পক্ষ থেকে বকশীগঞ্জ থানায় শাহীনসহ অন্যান্যে সহযোগীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করলে ক্ষিপ্ত হয়ে রনির বিরুদ্ধে বিয়ে গোপন করে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করে। পরে রনিকে গাজীপুর কিশোর সংশোধনী কারাগারে পাঠায় পুলিশ।
এর আগে পুলিশ তাকে বকশীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়। চিকিৎসাকালে তার বর্বরচিত নির্যাতনের চিহ্ন পাওয়া যায়।
বিষয়টি নিয়ে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি শাহীন সংবাদিকসহ অন্যান্যের বিরুদ্ধে জামালপুর বিজ্ঞ আদালতে একটি মামলা দায়ের করে রনির বড় ভাই ফুরকান আলী। কিন্তু মামলা দায়েরের পরও পুলিশ কোন তৎপরতা না থাকায় এলাকার মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে সাংবাদিকের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। মানববন্ধনের শাহিনের গ্রেফতারের দাবী জানানোর পাশাপাশি পুলিশের ভুমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়।
অভিভাবকবিহীন মাত্র ১৬ বছর বয়সী

একটি কিশোরকে বিবাহ বাধ্য করানোর পরেও স্থানীয় প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না।
এ বিষয়ে মোস্তাইন বিল্লাহ রনির বড়ভাই ফোরকান আলী জানান, আমার ভাইকে কৌশলে মেরুরচর বাজার থেকে ডেকে নিয়ে আটক করে রাখে শাহিনসহ অন্যান্যরা।

রনির বয়স প্রমানের সার্টিফিকেট

পরে তাকে রাতভর নির্যাতন করে। সকালে জামালপুর কোর্টে নিয়ে গিয়ে বিয়ে পড়ানো হয়। এসব বিয়ের কথা গোপন করে আমার ভাইয়ের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা দিয়ে কোর্টে পাঠানো হয়। আমার ভাইয়ের বয়স মাত্র ১৬ বছর। সারাদেশ যখন বাল্য বিয়ের বিরুদ্ধে এখানে কিভাবে বাল্য বিয়ে হয়। আমার ভাইকে জেলে দিয়েছে এতে আমরা আইনী লড়াইয়ে মুক্ত করে আনব কিন্তু তার নির্যাতন ও বাল্য বিয়ের বিচার চাই।
এ বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জেহাদ জানান, এ ধরনের অমানবিক ঘটনা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক। ছেলেটি অপরাধ করেছে তার শাস্তি আইনই দিবে এখানে আইন হাতে তোলে নিয়ে মারধোরের সুযোগ নেই। আর বাল্য বিয়েরও সুযোগ নেই। যারা এ ঘটনার সাথে জড়িত তাদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা উচিত।
এদিকের শাহিন ঘটনাটি অন্যখাতের প্রবাহিত করার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু লোক ভাড়া করেছেন বলে জানাগেছে। এ বিষয়ে বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হযরত আলী জানান, বিষয়টি নিয়ে অধিকতর তদন্ত হচ্ছে। তদন্তের পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102