শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৪৪ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
বকশীগঞ্জে যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার বকশীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি বাতিল! দুই মামলায় রাশেদ চিশতির জামিন দেওয়ানগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুরের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানালেন অধ্যাপক সুরুজ্জামান বকশীগঞ্জে পৌর আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের সংর্ঘষ ।। আহত অর্ধশতাধিক বকশীগঞ্জে নারী ও শিশু ধর্ষণ প্রতিরোধে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত দেওয়ানগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুর বকশীগঞ্জে এসডিজি অর্জনে জেলা নেটওয়ার্কের ষান্মাসিক সভা অনুষ্ঠিত সরিষাবাড়ীতে পুকুরে ডুবে ভাই বোনের মৃত্যু বকশীগঞ্জে ইলিশ রক্ষায় নিজেই মাঠে নামলেন ইউএনও মুনমুন জাহান লিজা

টানা আড়াই বছর ধর্ষন, স্বামী ও সন্তানের পিতৃত্বের দাবীতে থানায় অভিযোগ

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ৭০৯ জন সংবাদটি পড়ছেন

স্টাফ রিপোর্টারঃ প্রথমের মোবাইলে প্রেম ।প্রেমের কারণে ঘর ছেড়ে অজনার উদ্দেশ্যে পাড়ি।বন্ধুরবাড়ীতে নিয়ে অনবরত ধর্ষন করা হয় । আর এই ধর্ষনের ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে একের পর বিয়ে ছাড়াই স্বামী-স্ত্রীর মত দীর্ঘ আড়াই বছর বসবাস।ধর্ষনের ফসল হিসাবে শিশু সুমাইয়ার জন্ম নেয়। সেই সুমাইয়ার বয়স এখন ১১ মাস।বর্তমানে স্ত্রী ও সন্তানের বিষয়টি পুরোপুরি অস্বীকার করে আসছে।

স্বামী ও পিতৃতের দাবীতে ১০ সেপ্টম্বর বিকালে বকশীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিত ওই নারী।

জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম নামাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভোক্তভুগি নির্যাতিত ওই নারী  জানান, বকশীগঞ্জ পৌর এলাকার নামাপাড়া গ্রামের ইনছার আলীর ছেলে দুই সন্তানের জনক মকবুল হোসেন, পেশায় একজন সিএনজি অটোরিক্সা চালক।বছর আড়াই পুর্বে মোবাইলের মাধ্যমে সর্ম্পক গড়ে উঠে। এক পর্যায়ে বিয়ের কথা বলে বাড়ী থেকে বের করে নিয়ে গেয়ে ঢাকায় এক বন্ধুর বাসায় উঠে। সেখানেই কয়েকবার ধর্ষণ করে মুকবুল।আর সেই ধর্ষনের ছবি মোবাইলের মাধ্যমে রের্কড করে।


পরে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়েই ঢাকাতেই একটি বাসা ভাড়া নিয়ে বাস করে প্রায় দেড় বছর।এর মধ্যেই গর্ভবর্তীও হয়।গর্ভবতী হওয়ার নিজ গ্রাম বকশীগঞ্জ পৌর এলাকার নামাপাড়ায় আসে মকবুল। সেখানেই জন্ম নেয় শিশু সুমাইয়া।

এরপর তিন যাবত সন্তানের জন্য টাকা দেওয়া বন্ধ করে দেয় মকবুল। স্থানীয়দের কাছে এ বিষয়ে নির্যাতিত নারী বিচার দিলে বিয়ে, স্ত্রী ও সন্তানের কথা পুরোপুরি অস্বীকার করলে পুরো এলাকায় ঘটনাটি জানাজানি হয়ে যায়।

এ বিষয়ে বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হযরত আলী জানান, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তের জন্য একজন অফিসারের নিয়োগ করা হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102