বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:৩৩ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
বকশীগঞ্জে অবৈধ ৪ ড্রেজারে আগুন, পাইপ ধ্বংস জামালপুরে আ’লীগের দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ করলেন ৪৫ জন বকশীগঞ্জ প্রেসক্লাবে অতিরিক্ত সচিব শাওলী সুমনের রূহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল বক‌শীগঞ্জ উপ‌জেলা বিএন‌পি`র আহ্বায়ক ক‌মি‌টির প‌রি‌চি‌তি সভা বকশীগঞ্জ ২ হাজার ভারতীয় জাল রুপিসহ আটক ৭ বকশীগঞ্জে শিশু হত্যা, পিতার মৃত্যুদণ্ড বকশীগঞ্জ বিএনপির সংবাদ সম্মেলন, কমিটির আত্ম প্রকাশ শিক্ষা ও গবেষণায় এগিয়ে নেয়ার অঙ্গীকারে বশেফমুবিপ্রবি’র বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন দলকে সুসংগঠিত করাই এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্চ… মানিক সওদাগর আরব সাগরে ভেঙে পড়লো ভারতীয় যুদ্ধবিমান, পাইলটের মৃত্যু

৩ বছর পর কামালপুর স্থল বন্দরে পাথর আমদানী শুরু

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট, ২০১৯
  • ৬৫০ জন সংবাদটি পড়ছেন

স্টাফ রিপোর্টারঃ  জামালপুরের বকশীগঞ্জের ধানুয়া কামালপুর এলসি স্টেশন (লোকাল কাষ্টমস) বর্তমানে কামালপুর স্থল বন্দর দিয়ে দীর্ঘ তিন বছর পর ফের পাথর আমদানি শুরু হয়েছে।

২০ আগস্ট মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৪টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ভারত থেকে পাথর আসা শুরু হয়। এ সময় ভারত ও বাংলাদেশের কাষ্টমস এর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

কামালপুর বন্দর সুত্রে জানা যায়, গত ২০/০৫/২০১৫ তারিখে স্থানীয় এমপি ও সাবেক সফল তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় কামালপুর লোকাল কাষ্টমস (এলসি) স্টেশনকে পুর্নাঙ্গ স্থল বন্দরে রূপান্তর করা হয়। কিন্তু পাথর নির্ভর এই বন্দরে গত ৩ বছরে ১কেজি পাথরও আমদানী করা করা সম্ভব হয়নি।
বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে আইনগত বাধা না থাকার পরেও ভারতীয় অংশে আদালত কর্তৃক নিষেধাজ্ঞার ফলে এই স্থল বন্দরটি কার্যত বন্ধ হয়ে যায়। ভারতের পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র না থাকায় এই স্থল বন্দর দিয়ে পাথর আমদানি বন্ধ করা হয়।

পাথর আমদানী বন্ধ হওয়ায় প্রায় ১০ হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পড়ে।

এই শ্রমিকরা পাথর ভাঙার কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে থাকত। কিন্তু হঠাৎ করে ভারত সরকার পাথর আমদানি বন্ধ করে দিলে হাজার হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পড়ে।

এছাড়াও বাংলাদেশের কয়েক শ আমদানি-রপ্তানিকারক ও পাথর ব্যবসায়ী ক্ষতিগ্রস্থ হয়। বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের এলসি করা শত কোটি আটকে পড়ে যায়।

এরপর দুই দেশের কর্মকর্তাদের মধ্যে আলোচনা হলে এই স্টেশন দিয়ে ফের আমদানির উদ্যোগ নেওয়া হয়।

অবশেষে মঙ্গলবার দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর আবার পাথর আমদানি শুরু হয়। এখন থেকে প্রতিদিন আগের মত পাথর আমদানি করা হবে।
এ সময় ধানুয়া কামালপুর স্থল বন্দরের সুপারিনটেনডেন্ট এবিএম সালাউদ্দিন, পরিদর্শক আরিফুল ইসলাম সহ বিভিন্ন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে পাথর আমদানি শুরু হওয়ায় শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে আনন্দ বিরাজ করছে।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102