Blog Image

বকশীগঞ্জে বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জামালপুরের বকশীগঞ্জে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।
কযেকদিনের টানা বষণ ও পাহাড়ি ঢলের কারণে বন্যার বকশীগঞ্জ উপজেলায় সাধুর পাড়া ইউনিয়ন ও মেরুরচর ইউনিয়ন বন্যায় কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। অপরদিকে পাহাড়ি ঢলের কারণে ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়নের ৫ টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।
গাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদেও চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবু জানান, বন্যায় তার ইউনিয়নেরমদনের চর, শেখ পাড়া, চরকামালের বার্তী, কতুবের চর , চর গাজীরপাড়া, উত্তর আচ্চা কান্দি , কামালের বার্তী , বিলেরপাড়, আইরমারী গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে করে মানুষের মধ্যে বন্যা আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বালুগাও দশানী নদীর উপর ব্রিজের নিচ থেকে চর কামালের বাতী কাঁচা রাস্তাটি ভেঙে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। এছাড়াও শেখ পাড়া থেকে মদনেরচর রাস্তাটি বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়ায় চলাচলে অযোগ্য হয়ে পড়েছে।
মেরুরচর ইউনিয়নের মাদারের চর, ঘুঘরা কান্দি,মাইছানিরচর, ভাটি কলকিহারা, উজান কলকিহারা, পূর্ব কলকিহারা, ফকির পাড়া, ফারাজিপাড়া গ্রামেও পানিতে ছয়লাভ হয়েছে। সেব গ্রামের মানুষ পানি হয়ে পড়েছে। পানি বন্দি হওয়ায় মানুষের মধ্যে দুভোগ শুরু হয়েছে। বিশেষ বন্যা কবলিত এলাকার মানুষের মধ্যে বিশুদ্ধ পানির অভাব দেখা দিয়েছে।
অপরদিকে ধানুুয়া কামালপুর ইউনিয়নে গারো পাহাড়েরসোমনাথ পাড়া, সাতানি পাড়া, বালিঝুড়ি, কনে কান্দা ও লাউচাপড়া গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।
বন্যায় বগারচর, নিলক্ষিয়া, সাধুরপাড়া ও মেরুরচর ইউনিয়নের মোট ১০ হাজার মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েছে।
এখন পর্যন্ত সরকারি ভাবে কোন ত্রাণ সহায়তা প্রদান করা হয় নি।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কমকতা হাসান মাহবুব খান জানান, বন্যার বিষয়টি উধ্বতন কতৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। একই সাথে ত্রাণের চাহিদাও পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

[custom_share_link]

এ ধরনের আরও খবর