Blog Image

জামালপুরের সিংহজানী এলএসডিতে বোরো ধান-চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু হয়নি

স্টাফ রিপোর্টারঃ ১৬ মে’১৯, বৃহস্পতিবার চলতি বোরো মৌসুমের জামালপুরের পিয়ারপুর এলএসডিতে ধান-চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু হলেও জেলার প্রধানসরকারি মজুদ ভান্ডার সিংহজানী খাদ্য গুদামে ধান-চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু হয়নি এখনও।

সম্প্রতি সিংহজানী খাদ্য গুদামের সংরক্ষণ ও চলাচল কর্মকর্তা জিনাত শামছুন্নাহার সুলতানাকে গত ১৩মে তারিখে খাদ্য অধিদপ্তরের ৮৫৮ নং বদলীর আদেশে কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার খাদ্য কর্মকর্তা হিসাবে বদলী করা হয়েছে। একই সাথে ঈশ্বরদী এলএসডি(১ম শ্রেনি), পাবনা’র সংরক্ষণ ও চলাচল কর্মকর্তা জনাব আসাদুজ্জামান খানকে সিংহজানী খাদ্য গুদামের সংরক্ষণ ও চলাচল কর্মকর্তা হিসাবে বদলী করা হয়। গতকাল ১৯ মে রবিবার সকাল ১০টায় তিনি কর্মস্থলে যোগদান করেন ও বেলা ১১টায় তিনি চার্জ গ্রহন করার জন্য জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জনাব মাহবুবুর রহমান খানসহ জামালপুরের সিংহজানী খাদ্য গুদামে আসেন। এ সময় জিনাত শামছুন্নাহার সুলতানা কর্মস্থলে ছিলেন না।

জানা গেছে, জিনাত শামছুন্নাহার সুলতানা বদলীর এই আদেশ অনুসারে দায়িত্ব হস্তান্তরে গড়িমসি করছেন। তিনি আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত বর্তমান কর্মস্থলেই থাকতে চান।
ধান চাষী ও রাইস মিল মালিকদের অভিযোগ জিনাত শামছুন্নাহার সুলতানার কারণে চলতি বোরো মৌসুমের ধান, গম ও চাল সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু করা যাচ্ছে না এবং এতে মিল মালিকরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। দুই বার বোরে সংগ্রহ কার্যক্রমের তারিখ নির্ধারণ হওয়ার পরও তা পরিবর্তন করা হয়েছে শুধুমাত্র জিনাত শামছুন্নাহার সুলতানারের দায়িত্ব হস্তান্তরের গড়মসির কারণে। এই নিয়ে স্থানীয় চাল মিল মালিকদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

বিষয়টি নিয়ে জিনাত শামছুন্নাহার সুলতানার সাথে যোগাযোগ করার জন্য একাধিকবার চেষ্টা করলেো তিনি তার ব্যাবহৃত ফোন রিসিভ করেন নাই।

এ বিষয়ে জামালপুর খাদ্য নিয়ন্ত্রক মাহাবুবুর রহমান খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান দায়িত্ব হস্তান্তরের জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে।

জামালপুর জেলা চাল মিল মালিক সমিতির সভাপতি জনাব আউলাদ হোসেন খসরু অতি দ্রুত এই অচলাবস্থার নিরসনের দাবী জানিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

[custom_share_link]

এ ধরনের আরও খবর