রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:৪১ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English

আজমেরীর দুধের মুল্য কত নির্ধারন করবে আদালত?

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১২ এপ্রিল, ২০১৯
  • ৮১০ জন সংবাদটি পড়ছেন

গোলাম রাব্বানী নাদিমঃ মায়ের এক ধার দুধের দাম কাটিয়া গায়ের চাম, পা-পোশ বানাইলেও ঋণের শোধ হবে না।
মা আজমেরীর ৩২ ধারের দুধের মুল্য কিভাবে নির্ধারন করবে বর্তমান আইন আর আদালত।এই প্রশ্নই এখন ঘুরে বেরাচ্ছে বকশীগঞ্জের আকাশে বাতাশে।

একদিকের স্নেহ আর মায়া অপরদিকে অর্থ আর আইন।কে শেষ পর্যন্ত জয়ী হবে? এটাই দেখার জন্য উন্মুখ এখন বকশীগঞ্জের মানুষ।

গত ২৯ মার্চ থেকে শ্বাশনঘাটি থেকে কুড়িয়ে পাওয়া রাজকুমারীকে নিজের বুকের দুধ দিয়ে সুস্থ্য রেখেছেন আজমেরী।

এর মধ্যে আলোচিত রাজকুমারী দেখতে হাসপাতালে ছুটে গেছেন স্থানীয় সংসদ, উপজেলা চেয়ারম্যান, থানার ওসি, পৌর মেয়রসহ স্থানীয় রাজনীতিবিদ ও বিভিন্ন পর্যায়ের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা।

সবাই একবারের জন্য হলেও রাজকুমারীকে কুলে তোলে নিয়ে আদর করেছেন, নগদ অর্থসহ কিছু উপহার সামগ্রীও হাতে তোলে দিয়েছেন কিন্তু কেউ রাজকুমারীর দায়িত্ব নেননি। এই কাজটিই করেছেন দরিদ্র আজমেরী।

নিঃসন্তান আজমেরী সন্তানের জন্য সঞ্চিয়িত সমস্ত ভালবাসা আর স্নেহ উজার করে নিজের বুকের দুধ দিয়ে বাচিয়ে রেখেছেন পাওয়া রাজকুমারীকে। আর এই দুধ খেয়ে বেঁচে থাকা দুধের ‍মুল্য কত নির্ধারন করবে আদালত।

কেন এত আলোচিত রাজকুমারীঃ গত ২৯ মার্চ সকালে বকশীগঞ্জ পৌর শহরে শ্বশানঘাট এলাকায় কুরিয়ে পাওয়া যায় রাজকুমারীকে।স্থানীয় সন্ধি বেগম নামের এক মহিলা কান্নার শব্দ শোনে রাজকুমারীকে উদ্ধার করেন। পরে এ বিষয়টি স্থানীয় মহিলা কাউন্সিলর রহিমা বেগম থানা প্রশাসনের সহযোগিতায় বকশীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। এ সময় কুরিয়ে পাওয়া শিশুটির নাম রাখে রাজকুমারী।

খবরটি জানাজানি হলে বকশীগঞ্জ কামারপট্টি এলাকার বাসিন্দা সুমন মিয়া ও তার স্ত্রী আজমেরী সন্তানটি দত্তক নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করলে পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগরসহ এলাকার গন্যমান্য বক্তিদের উপস্থিতিতে আজমেরীর হাতে তোলে দেওয়া হয় রাজকুমারীকে।

পরবর্তী সময়ে এই সংবাদটি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার হলে আরও দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষ আবেদন করে শেষ পর্যন্ত আদালতে শরানাপন্ন হয়। বিষয়টি অত্যন্ত স্পর্শকাতর হওয়া ঘটনার ১৫দিন পরও সিদ্ধান্তে উপণিত হতে পারেনি।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102