বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:২১ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English

বকশীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে স্থগিত হওয়া কেন্দ্রে ভোট গ্রহন ১০ ফেব্রুয়ারী । শেষ মুহুর্তে প্রচারনা

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯
  • ৮৬৮ জন সংবাদটি পড়ছেন

বিশেষ প্রতিনিধিঃ  প্রায় ১ বছরের বেশি সময় থেকে ঝুলে থাকা বকশীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে স্থগিত হওয়া মাত্র ১টি কেন্দ্র ভোট গ্রহন আগামী ১০ ফেব্রুয়ারী। ভোট গ্রহন উপলক্ষে চলছে শেষ মুহুূতে প্রচারনা। নেঁচে গেয়ে ভোট প্রার্থনা করছে প্রার্থীর সমর্থকরা।

প্রসঙ্গত, গত ২০১৭ সালে ২৮ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত। ১২টি কেন্দ্রের মধ্যে ১১টি কেন্দ্রে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও মালিরচর হাজীপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র ব্যালট পেপার ছিনতাই এর কারনে ভোট গ্রহন স্থগিত করে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার। ৩ দফা নির্বাচনের তারিখ ঘোষনা হওয়ার পরেও আওয়ামীলীগের প্রার্থীর মামলার কারনে ভোট গ্রহন বাতিল করা হয়। নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী শাহিনা বেগম ৫হাজার ১৬০ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থানে অবস্থান করছেন।


এর আগে ২০১৭ সালের ২৮ ডিসেম্বর জামালপুরের বকশীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে ১২টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ভোটের দিন ১১টি কেন্দ্র নিয়ে কোনো প্রশ্ন না তুললেও একটি ভোট কেন্দ্রে অনিয়ম করা হয়েছে বলে ভোটগ্রহণ এবং ফলাফল ঘোষণা বন্ধ রাখা হয়। এরপর পৌর নির্বাচনে ৩য় স্থান অধিকারী সরকারি দল আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহিনা বেগম ৭টি কেন্দ্রে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়ে হাইকোর্টে রিট করেন। ওই রিটের শুনানি নিয়ে নির্বাচন স্থগিতসহ রুল জারি করেন আদালত। রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে রায় ঘোষণা করার পর দশ ফেব্রুয়ারী নির্বাচনের তারিখ ঘোষনা করে নির্বাচন কমিশন।

২০১৩ সালে বকশীগঞ্জক পৌরসভায় রূপান্তর হয়। পরে সীমানা নির্ধারণের জটিলতা নিয়ে প্রায় ৫ বছর পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। এরপর ২০১৭ সালের ২৮ ডিসেম্বর প্রথমবারের মতো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

তবে, মালিরচর হাজীপাড়া কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ১ হাজার ১২৮ জন। বকশীগঞ্জ পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ৩০ হাজার ৫৯১ জন।

১১টি কেন্দ্রের ফলাফলে উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক (স্বতন্ত্র প্রার্থী) নজরুল ইসলাম সওদাগর জগ প্রতীক নিয়ে ৮৫৯৯ ভোট পান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী ফখরুজ্জামান মতিন ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পান ৭ হাজার ৭০৫ ভোট। আর আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহিনা বেগম নৌকা প্রতীক নিয়ে ৫ হাজার ১৬০ ভোট পেয়ে ৩য় স্থান অর্জন করেন।

অপর তিন স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার হোসেন তালুকদার বাহাদুর নারিকেল গাছ নিয়ে ৮৩৩, নুরুজ্জামান মোবাইল প্রতীক নিয়ে ৪৯৬ ও সোলায়মান হক কম্পিউটার প্রতীক নিয়ে পান ১৩১ ভোট।

 

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102