রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ০১:৩২ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
শ্রীবরদী উপজেলা আ`লীগের সাধারণ সম্পাদকের উপর হামলা, হামলাকারী আটক সরিষাবাড়ীতে ফ্রান্সবিরোধী বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ জামালপুরে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সাধারণ সভা বকশীগঞ্জে বিভিন্ন মামলায় ১০ আসামি গ্রেপ্তার ডিজিটাল সেন্টারের নারী উদ্যোক্তাকে তাড়িয়ে দিয়েছেন নরুন্দি ইউপি চেয়ারম্যান মাদার তেরেসা গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন প্যানেল মেয়র সেলিনা আক্তার বকশীগঞ্জে যুবদলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত ধানের শীষের সাথে মিশে আছে যার জীবন, সেইতো আব্দুল্লাহ আল সাফি লিপন বকশীগঞ্জে রাতে চালু থাকা ড্রেজারে বালু উত্তোলন বন্ধ করলেন ওসি

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিতসভা

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৭ জানুয়ারী, ২০১৯
  • ৬৪৯ জন সংবাদটি পড়ছেন
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের বকশীগঞ্জ উপজেলা শাখার দলীয় কার্যালয়

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে প্রার্থী মনোনয়নের জন্য আজ বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের বিশেষ বর্ধিত সভা।
বর্ধিত সভায় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট বাকী বিল্লাহ প্রধান অতিথি ও সাধারন সম্পাদক ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। বর্ধিত সভায় সভাপতি করবেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নুর মোহাম্মদ।
স্থানীয় এমপি আবুল কালাম আজাদ বর্ধিত সভায় উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে তবে এক দলীয় এক সুত্রে জানাগেছে তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় তিনি বর্ধিত সভায় যোগদান করছেন।
এ পর্যন্ত প্রায় ৮জনপ্রার্থী দলীয় মনোনয়ন আশায় মাঠে থাকলেও কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক জনপ্রিয় ৩ প্রার্থীর নাম পাঠানোর কথা রয়েছে। কোন তিন জনপ্রিয় ও সম্ভব বিজয়ী প্রার্থীর নামে পাঠানোর নির্দেশনা মোতাবেক নাম পাঠানো হবে পাশাপাশি পরবর্তীতে যাতে কোন ধরনের বিদ্রোহের ঘটনা না ঘটে সে বিষয়ে সর্তক থেকেই এই বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়েছে দলীয় সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানাগেছে। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বকশীগঞ্জ থেকে আট জনপ্রার্থী মনোনয়নের চেষ্টা তদ্বির চালিয়ে যাচ্ছেন।
এর মধ্যে রয়েছেন নিলক্ষিয়া ইউনিয়নের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম সাত্তার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও জেলা পরিষদের অত্যন্ত জনপ্রিয় সদস্য, শ্রমিক নেতা জয়নাল আবেদীন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আবু জাফর, উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, মুক্তিযোদ্ধের অন্যতম সংগঠক আব্দুল হামিদের পুত্র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সধারন সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিজয়, আওয়ামীলীগ নেতা এমদাদুল হক এমদাদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক মোফখখার হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য, সাধুরপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সাধুরপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মাহামুদুল আলম বাবু, উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা আবুল কালাম আজাদ ফড়িং, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এম. নুরুজ্জামান।
প্রার্থীদের জনপ্রিয়তা বিশ্লেষন করলে দেখা যায়, নিলক্ষিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সাত্তার, নিলক্ষিয়া ইউনিয়নের মতো একটি স্পর্শকতর জয়গা থেকে দুইবার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে তার যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখেছেন। ক্লিন ইমেজধারী ও দুর্নীতিমুক্ত এই প্রার্থী মনোনয়ন পেলে জয় অনেকটাই সহজ হবে বলে তার সমর্থকরা আশা ব্যক্ত করেছেন।
শ্রমিক নেতা জয়নাল আবেদীন, বিগত ৪০ বছর যাবত রাজনীতির সাথে জড়িত। প্রতিটি নেতাকর্মীদের সাথে রয়েছে তার গভির সর্ম্পক। গত জেলা পরিষদ নির্বাচনে ব্যাপক ভোটে নির্বাচিত হন তিনি। নির্বাচিত হওয়ার পর জেলা পরিষদ থেকে প্রায় কোটি টাকারও বেশি বিভিন্ন মসজিদ মাদ্রাসা ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানে দান করেছেন।
আওয়ামীলীগ নেতা আবু জাফর, তৃনমুল আওয়ামীলীগ থেকে উঠে আসা সবার প্রিয়মুখ। উপজেলার আওয়ামীলীগ ও যুবলীগের অনেকের রাজনীতির শিক্ষা গুরু হিসাবে আবু জাফরকেই সম্মোধন করে থাকেন। গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়নে নির্বাচন করে অল্প ভোটে পরাজিত হয়েছেন। পরিবেশ পরিস্থিতি পরিবর্তনে তিনি মনোনয়ন পেলে জয় সুনিশ্চিত বলে মনে করেন তার সমর্থকরা।
সাইফুল ইসলাম বিজয়, মুক্তিযোদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল হামিদের পুত্র এই সাইফুল ইসলাম বিজয়। দলের চরম কোন্দলে অত্যন্ত কৌশলী সাইফুল ইসলাম বিজয় নিজের পদে থেকে কোন্দল সামলিয়ে যোগ্যতার পরিচয় দিয়েছেন। গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ও পৌরসভা নির্বাচনে তিনি দলের মনোনয়ন চেয়েছিলেন, তিনি না পেলেও দলের স্বার্থে ত্যাগ স্বীকার করে দলের সিদ্ধান্তের বাইরে তিনি যাননি। তার এই ত্যাগের স্বীকৃতিসুরূপ এবার দল তাকে মনোনয়ন দিবে এই প্রত্যাশা করে তার সমর্থকরা।
মাহামুদুল আলম বাবু: বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য, সাধুরপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সাধুরপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মাহামুদুল আলম বাবু হচ্ছেন তারুন্যের প্রতিক। সাধুরপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর এ্যারাবিয়ান রাজা বাদশাদের মতো তিনিও তার এলাকার মানুষের ঘরে ঘরে পৌছে গোপনে মানুষের দু:খ কষ্টগুলো শোনার চেষ্টা করেন। সবার আপদ ও বিপদে সবার আগে দ্রুত ঝাপিয়ে পড়েন। একমাত্র বাবুকে দিয়েই উপজেলা চেয়ারম্যান পদটি আওয়ামীলীগ দখলে নিতে পারবে বলে তার সমর্থকরা জানান।
এমদাদুদুল হক এমদাদ : বকশীগঞ্জ উপজেলার সবচেয়ে আলোচিত প্রার্থী। গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র থেকে নির্বাচন করে প্রায় বাইশ হাজার ভোট পান। নির্বাচন পরবর্তী সময়ে তিনি ব্যক্তিগতভাবে অনেক অর্থ বিভিন্ন ধর্মীয়, সামাজিক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দান করেন। এলাকার বেকার সমস্যা সমধানে তিনি এলাকায় বৃহত শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেছেন। এলাকাদরদি এমদাদকে মনোনয়ন দিলেই কেবল আওয়ামীলীগের জয় নিশ্চিত বলে মনে করে তার সমর্থকরা।
মোফাখখার হোসেন খোকন: আওয়ামীলীগ থেকে প্রথম জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হন মোফাখখার হোসেন খোকনের বাবা এ্যাডভোকেট আশরাফ হোসেন। মুক্তিযোদ্ধের অন্যতম সংগঠক এডভোকেট আশরাফ আলী
সদ্য সমাপ্ত হওয়া জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ের ধারাবাহিকতা ও নির্বাচনে বিজয় পদ্ধতি দেখে সাধারন মানুষের ধারনা মনোনয়ন যার, চেয়ারম্যানের চেয়ারটাও তার। আর সেই কারণে এত বিপুল সংখ্যক প্রার্থীর আবির্ভাব।
এদিকে বকশীগঞ্জ উপজেলা প্রতিষ্ঠা থেকেই উপজেলা চেয়ারম্যান পদটি অধরা রয়েছে আওয়ামীলীগের জন্য।
প্রথম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জাতীয়পাটির সোলায়মান হক, আর বাকী সবকটি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী হিসাবে আব্দুর রউফ তালুকদার জয়ী হয়েছেন।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102