রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English

জনবিচ্ছিন্ন নেতাদের মনোনয়ন দেয়া হবে না : ওবায়দুল কাদের

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৮
  • ৫৯৫ জন সংবাদটি পড়ছেন

অনলাইন ডেস্কঃ ‘আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তৃণমূল থেকে জরিপের রিপোর্ট দলের সভানেত্রীর হাতে এসে পৌঁছেছে। যারা বড় নেতা হয়েও নিজ এলাকায় জনবিচ্ছিন্ন; তাদের মনোনয়ন দেয়া হবে না।’ বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।তিনি শনিবার গণভবনে তৃণমূল নেতাদের নিয়ে আওয়ামী লীগের দ্বিতীয় দফার বর্ধিত সভায় এ কথা বলেন ।

এসময় তিনি আরো বলেন, ‘দলের ভাবমূর্তি উজ্জ্বলে এলাকায় যেসব নেতা কাজ করেছেন। সরকারের উন্নয়নে ভূমিকা রেখেছেন, তারাই মনোনয়নের ক্ষেত্রে প্রাধান্য পাবেন।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমাদের কাছে দেশি-বিদেশি ৫-৬ টি জরিপ রিপোর্ট আছে। এই রিপোর্টগুলো আমরা সংসদীয় বোর্ডের সদস্যরা স্টাডি করছি। এই রিপোর্টগুলো চুলচেরা বিশ্লেষণ করে প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়া হবে, যেন জনমতের প্রতিফলন ঘটে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, জোটকে আনুমানিক হিসাব করেছি ৬৫-৭০টি আসন ছেড়ে দেবো। এটা কমতেও পারে বাড়তেও পারে। সব কিছু নির্ভর করবে বিজয়ের সম্ভাবনার ওপর। ইলেক্টেবল ক্যান্ডিডেটরাই মনোনয়ন পাবেন, এটা দলের ক্ষেত্রেও জোটের ক্ষেত্রেও। শুধু চাইলেইতো হবে না, আওয়ামী লীগেরও যাদের জয়ের সম্ভাবনা বেশি তারাই পাবেন।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে কাদের বলেন, প্রতিপক্ষ যদি বড় ধরনের অ্যালায়েন্সের সমীকরণে যায়, আমরাও যাবো। আজ ৩৯ দলীয় গণতান্ত্রিক ঐক্যজোট এসেছিলো। তারা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সঙ্গে কাজ করতে চায়। তারা মনোনয়ন চায় না, তাদের প্রার্থী তালিকা নেই।


একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্ট আওয়ামী লীগের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ নির্বাচনে আসবে কি-না জানতে চাওয়া হলে ওবায়দুল কাদের বলেন, যুক্তফ্রন্ট আসবে তাতে সন্দেহ নেই। নৌকা প্রতীক আমরা ১৪ দলের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রেখেছি। জোট হলেও অন্যরা যার যার প্রতীকে নির্বাচন করবে।

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার প্রায় চূড়ান্ত জানিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, শিগগির ইশতেহার প্রকাশ করা হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ, উপদেষ্টা পরিষদ, রংপুর, খুলনা, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের অধীন প্রতিটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত দলীয় চেয়ারম্যান এবং মহানগরের অধীন সংগঠনের প্রতিটি ওয়ার্ডের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, দলীয় নির্বাচিত কাউন্সিলর ও জেলা পরিষদের নির্বাচিত দলীয় সদস্যরা ।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102