রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০২:৪৫ পূর্বাহ্ন
Bengali Bengali English English

আমাদের সন্তান পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি মোখলেছুর রহমান পান্না….

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৮
  • ৩১৬৬ জন সংবাদটি পড়ছেন

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মোখলেছুর রহমান, পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি। জামালপুরের বকশীগঞ্জে জন্ম নেওয়া এই মানুষটির কল্যাণে আজ পুলিশ আর মানুষ এক কাতারে। গরিববান্ধব পুলিশিং এর ্অাবিস্কারক এই ব্যক্তিটির কারণে পুরো পুলিশি ব্যবস্থায় এসেছে অমুল পরিবর্তণ।বাবা ডাঃ লোকমান আলী ও মোসলিমা খাতুনের ঘরে জন্ম নেওয়া এই  তার কর্মদক্ষতা আর সততার কারণে  আমাদের বকশীগঞ্জকে নিয়ে গেছেন অন্যান্য উচ্চতায়। 


জামালপুরের কৃতিসন্তান, মোঃ মোখলেসুর রহমান বর্তমানে বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (গ্রেড-১)হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। বিগত ৭ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রিঃ তারিখে এই পদে পদোন্নতি পেয়েছেন জনাব মোঃ মোখলেসুর রহমান। বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারে পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত আইজিপি মোখলেসুর রহমানকে অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (অতিরিক্ত) গ্রেড-১ (জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ এর ৭৮ হাজার টাকা (নির্ধারিত) পদে পদোন্নতি প্রদান করা হয়।

মহামন্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের সাথে মোখলেছুর রহমান পান্না।

এর অাগে গত ৩ বছর ধরে তিনি পুলিশ সদরে অত্যন্ত দক্ষতার সাথে অতিরিক্ত আইজিপি (প্রশাসন ও অপারেসনস) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

পুলিশ সদর দপ্তরের অতিরিক্ত আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহনের আগে তিনি বাংলাদেশের ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট- সিআইডি’র প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার আগে তিনি পুলিশের ঢাকা বিভাগের ডিআইজি, পুলিশ সদর দপ্তরের ডিআইজি (ট্রেনিং) সারদা পুলিশ একাডেমীর প্রিন্সিপাল (ডিআইজি) , বরিশাল আরআরএফের কমান্ডেন্ট, পুলিশ সুপার গাজীপুর, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি-মতিঝিলসহ পুলিশ বিভাগের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বাংলাদেশ পুলিশের ৮৫ ব্যাচের সদাহাস্য ও সদালপি এই কর্মকর্তা চাকুরি জীবনের শুরু থেকেই অত্যন্ত সততা ও দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে আসছেন । তিনি সিআইডি প্রধান থাকার সময় ২১ আগস্ট শেখ হাসিনার জনসভায় গ্রেনেড হামলা মামলা ও আলোচিত ১০ ট্রাক অস্ত্র উদ্ধার মামলাসহ বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ মামলার সঠিক ও নির্ভুল তদন্ত করে চার্জশীট দেন। আর এর উপর ভিত্তি করেই ১০ অক্টোবর সেই আলোচিত রায় হয়।

এছাড়াও চাকরি জীবনের প্রথম দশকে তিনি রাজধানীর একটি স্পর্শকাতর জোন থেকে বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি লে. কর্নেল ফারুক, লে. কর্নেল রশীদ ও খায়রুজ্জামানকে গ্রেফতার করেন। ১৯৯৬ সালের ১৩ ই আগস্ট তিনি এই অভিযানে নেতৃত্ব দেন । এসময় তিনি এসবি’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ৭৫ পরবর্তী সময়ে এটিই ছিল জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু’র খুনিদের বিরুদ্ধে সরকারের নেয়া প্রথম পদক্ষেপ। পুলিশের এসবি’র মত একটি নন অপারেশনাল ইউনিটের এটি অনবদ্য অপারেশান । বাংলাদেশ সৃষ্টির পর থেকে আজ পর্যন্ত এটাই এসবি’র একমাত্র অপারেশন। এর আগে বা পরে আর কখনোই এসবি কোন অভিযান পরিচালনা করেনি। মোখলেসুর রহমানের চাকরির মেয়াদ রয়েছে ২০১৯ সালের মে মাস পর্যন্ত।

বাল্য বিয়ে বিরোধী শপথ অনুষ্ঠানে মোখলেছুর রহমান পান্না

এই মোখলেছুর রহমান জামালপুরের বকশীগঞ্জের সন্তান। তিনি উপজেলার সাধুরপারা ইউনিয়নের কামালেরবাবর্ত্তী  গ্রামে জন্ম গ্রহন করেন।৬ ভাই বোনের মধ্যে তিনিই সবার বড়। বাবা ডাঃ লোকমান আলী ও মোসলিমা খাতুনের ঘরে জন্ম নেওয়া বাবা ছিলেন চিকিৎসক, সর্বশেষ সিভিল সার্জন হিসাবে অবসর গ্রহন করেন। ছোট ভাই ডাঃ মমনির রহমান জিন্নাহ পেশায় চিকিৎসক। আর বাকী তিন ভাই মিজানুর রহমান, মিলাদুর রহমান ও মুকুল তার ব্যবসায়ী। বোন জুলি একটি সরকারী মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা।
স্ত্রী শাউলী সুমন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। এক কন্যা সন্তানের জনকও তিনি।

 

আলোকিত জামালপুর।

 

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102