Blog Image

প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে ১০জন আটক

বিশেষ প্রতিনিধি ঃ জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার দেওয়ানগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষা চলাকালে মুঠোফোনে প্রশ্নপত্রের ছবি তোলার সময় আটক এক পরীক্ষার্থীর মাধ্যমে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে আরও নয় পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার ও আটক করা হয়েছে।


৭ ফেব্রুয়ারি সকালে ইংরেজি দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষার শুরুর মুহূর্তেই এ ঘটনা ঘটে। কেন্দ্র সচিব রায়হানা আক্তার বেগম জানান, ইংরেজি দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বিতরণের কিছুক্ষণের মধ্যেই একটি কক্ষে মুঠোফোনে প্রশ্নের ছবি তোলার সময় পরীক্ষার্থী তারিকুল ইসলামকে মুঠোফোনসহ আটক করা হয়। তার মুঠোফোনে আগে থেকেই সংরক্ষিত ইংরেজি দ্বিতীয়পত্রের প্রশ্নপত্র পাওয়া যায়। পরে তারিকুল ইসলামের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরও নয়জন পরীক্ষার্থীকে আটক করা হয়। তাদের প্রত্যেকের মুঠোফোনে আগে থেকেই ফাঁস হওয়া ইংরেজি দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্নপত্র পাওয়া যায়। আটক পরীক্ষার্থীরা সবাই জিল বাংলা সুগার মিল উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী। আটক বাকি নয়জন পরীক্ষার্থী হলো এনামুল হক শান্ত, তানভির আহমেদ, ইস্তিয়াক মাহমুদ নিলয়, নওসিশ দুর্জয়, সুনিল বাবু, ফয়সাল আহমেদ, মাহমুদুল হাসান ওয়াসি, মোবাখারুল ইসলাম, মোবারক আকন্দ ও আনোয়ার হোসেন আবির। এ প্রসঙ্গে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা বলেন, কেন্দ্রে মুঠোফোনে ছবি তোলা এবং অনলাইনে প্রশ্ন সংগ্রহ করার দায়ে ওই ১০ জন পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার এবং তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল লতিফ জানান, কেন্দ্র সচিব রায়হানা আক্তার বেগম বাদী হয়ে আটক ১০ জন পরীক্ষার্থীর বিরুদ্ধে ১৯৮০ সালের পাবলিক পরীক্ষা অপরাধ আইনে মামলা দায়ের করেছেন। আটক পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে মুঠোফোনগুলো জব্দ করা হয়েছে। এদিকে দেওয়ানগঞ্জ সার্কেলের ভারপ্রাপ্ত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সুফিয়ান ৭ ফেব্রুয়ারি রাতে জানান, পরীক্ষা কেন্দ্রে মুঠোফোনে অভিনব কায়দায় প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে আটক ওই পরীক্ষার্থীদের বয়স কম হওয়ায় তাদেরকে কিশোর আদালতে সোপর্দ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

[custom_share_link]

এ ধরনের আরও খবর