শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:৪৮ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English

সরকারী ও বিরোধীদলের কাছে চক্ষুশূল বিদ্রোহী নজরুল

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৭
  • ৮৫২ জন সংবাদটি পড়ছেন

বিশেষ প্রতিনিধিঃ সরকারী দল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও সাবেক বিরোধী বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) দুই দলের নিকটই চক্ষুশূল আসন্ন বকশীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে অন্যতম আলোচিত বিদ্রোহী প্রার্থী নজরুল ইসলাম সওদাগর।
বিগত কয়েকদিনে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণায় এমনটাই দেখা গেছে।
সম্প্রতি উপজেলা আওয়ামীলীগ কর্তৃক বর্ধিত সভায় বিএনপির প্রার্থী ফখরুজ্জামানের পরিবর্তে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নজরুল সওদাগরই ছিলেন লক্ষ্য। নজরুল ইসলাম সওদাগরকে ঘিরেই উত্তপ্ত বক্তব্য আসছে। এছাড়া সরকারী দলের প্রতিটি প্রচারণায় নজরুলই এখন প্রধান টার্গেট।
এদিকে বিএনপির প্রার্থীর সামনেই একমাত্রা বাধাই হচ্ছে বিদ্রোহী নজরুল। তাদের প্রচারানায় মুল টার্গেটই হচ্ছে নজরুল।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য জানান, আসন্ন নির্বাচনে জয়ের পথে আমরা ধানের শীষকে বাধা মনে করি না। কিন্তু নজরুল সওদাগর নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ফলে আওয়ামীলীগের মধ্যে একটু দ্বিধাবিভক্ত রয়েছে। যদি আরও হাতে রয়েছে ১২দিন, এর মধ্যেই সমস্ত দ্বিধাবিভক্ত দুর হবে বলে আশা করছি। এ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী জয় শতভাগ নিশ্চিত বলেও মনে করেন এই নেতা।
এদিকে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থীকেও পাত্তাই দিচ্ছে না বিএনপি। তারা জানান, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আওয়ামীলীগের প্রার্থী ৩ অথবা ৪ নম্বারে অবস্থান হবে।
এক্ষেত্রে জয়ের বিষয়ে একমাত্র বাধাই হচ্ছে নজরুল বলে মনে করে বিএনপি।
যেসব কারণে নজরুর সওদাগর চক্ষুশূলঃ
নজরুল সওদাগর বাস করেন বকশীগঞ্জ পৌর শহরে। অপর দুই প্রার্থীর অবস্থান পৌরসভার বাইরে। সংগত কারণেই বকশীগঞ্জ পৌরবাসীর প্রথম পছন্দ হচ্ছে নজরুল, যেটি আওয়ামীলীগ ও বিএনপি প্রার্থীর নেই। বিএনপি প্রার্থী মতিনের বাস করেন পৌরসভা থেকে প্রায় ৭ কিলোমিটার দুরে। আওয়ামীলীগের প্রার্থী বাস করেন পৌরসভা থেকে ৩ কিলোমিটার দুরে।
এলাকা ভিত্তিক ভোটার দ্বারা প্রভাবিত উভয় প্রার্থী। এক্ষেত্রে নজরুল সওদাগর সমস্ত এলাকাতেই সমানভাবে প্রভাবিত।
ভোটের রাজনীতিতে উভয় দলের প্রার্থীদের দুর্গে হানা দিবে নজরুল। বিশেষ করে আওয়ামীলীগের প্রার্থী নিজ এলাকা মালিরচরে নজরুলের রয়েছে ভোট ব্যাংক। সেখানেই তিনি প্রায় ৫০ভাগ ভোট পাবেন নজরুল ইসলাম সওদাগর।
অনুরূপ ক্ষেত্রে মতিনের নিজস্ব এলাকা টিকরকান্দী এলাকায় প্রায় ৪০ভাগ ভোট পাবেন নজরুল এমনটাই মনে করেছেন নজরুলের সমর্থকরা।
আওয়ামীলীগ ও বিএনপি মধ্যে চরম অভন্তরিন কোন্দল এবং ব্যাপক জনসমর্থণ নজরুল ইসলাম সওদাগরকে জয়ের হাতছানি দিচ্ছে বলে সাধারণ ভোটাররা মনে করছেন।
আগামী ২৮ ডিসেম্বর বকশীগঞ্জ উপজেলায় প্রথমবারের মত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে আওয়ামীলীগ প্রার্থী উপজেলা মহিলালীগের সভাপতি শাহিনা বেগম নৌকা, বিএনপির প্রার্থী ও উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক ফখরুজ্জামান মতিন ধানেরশীষ ও পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম সওদাগর জগ প্রতিকে নির্বাচনে অংশ নেওয়া ছাড়াও উপজেলা তাতী লীগের আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন বাহাদুর নারিকেল গাছ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এম, নুরুজ্জামান মোবাইল ফোন ও কৃষক শ্রমিক জনতালীগের সভাপতি সোলায়মান হক কম্পিউটার নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।
উপজেলা তাতীলীগ থেকে আনোয়ার হোসেন তালুকদার বাহাদুর ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য থেকে এম. নরুজ্জামানকে বহিস্কার করলেও নজরুল ইসলাম সওদাগারকে পৌরযুবলীগের আহ্বায়ক থেকে এখন পর্যন্ত বহিস্কার করতে পারেনি জেলা যুবলীগ বা উপজেলা যুবলীগ।
তবে দলের এক সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানাগেছে. উপজেলা যুবলীগ বিলুপ্তি ও নজরুল ইসলাম সওদাগরকে পৌরযুবলীগের আহ্বায়ক থেকে বহিস্কার করে কেন্দ্রীয় যুবলীগে পাঠানো হয়েছে কিন্তু এখন পর্যন্ত সেটি অনুমোদিত হয়নি।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102