মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৪৬ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
বকশীগঞ্জে মডেল মসজিদের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন যে কারণে স্থগিত হল বকশীগঞ্জে আ’লীগের বর্ধিতসভা জামালপুর পৌরসভা নির্বাচনঃ প্রার্থী হিসাবে অধ্যাপক সুরুজ্জামানের পরিচিতি ভাষা সৈনিক এডভোকেট আশরাফ হোসেনের ইন্তেকাল বকশীগঞ্জে হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা না থাকায় দুর্ভোগ চরমে বকশীগঞ্জে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি রুখতে বাজার মনিটরিংয়ে ইউএনও জনগনকে থানায় যেতে হবে না, পুলিশ যাবে জনগনের কাছে.. সীমা রানী সরকার জামালপুর জেলা আ’লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভা বকশীগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাঙচুর, জেলা আ’লীগের ৩ সদস্যের তদন্ত টিম গঠনের সিদ্ধান্ত নুর মোহাম্মদের পদত্যাগ পত্র গ্রহন করে নাই জামালপুর জেলা আওয়ামীলীগ

বকশীগঞ্জ পৌর নির্বাচন। কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি?

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৭
  • ১৮৭২ জন সংবাদটি পড়ছেন

বিশেষ প্রতিনিধিঃ সাধারন ভোটারদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দিপনা দেখা দিলেও আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে উৎকণ্ঠার মধ্যে দিয়ে সময় অতিবাহিত করছে। কে পাচ্ছেন আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ণ? এই নিয়ে জল্পনাকল্পনার শেষ নেই। নিজের প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন পাবেন তো? এই প্রশ্ন আকাশে বাতাশে ঘুরে বেড়াচ্ছে।
বকশীগঞ্জ পৌর নির্বাচনে স্থানীয় উপজেলা আওয়ামীলীগের মধ্যে দলীয় কোন্দল আবারও মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। নিজের পছন্দের প্রার্থী মনোনয়ন না পেলে পুর্বের ন্যায় আবারও বিদ্রোহ। মহান মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ন এই উপজেলাটিতে জাতীয় সংসদ নির্বাচন ব্যতিত প্রায় সবকটি নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থীরা সুবিধা করতে পারেনি।
পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহের আগুন আবারও ঘর পুড়বে এই আশংকায় উপজেলা আওয়ামীলীগও রয়েছে বিব্রতকর অবস্থায়। এই নিয়ে কেউ কোন মুখ খুলতে চাচ্ছে না।
এবারের পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের ৭জন প্রার্থী মনোনয়ণ চেয়েছেন। প্রত্যেকেই মনোনয়ন পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু মনোনয়ন যেহেতু ১জনকে দিতে হবে বাকী ৬জনই রয়ে যাবেন দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে।
যারা মনোনয়ণ চেয়েছেন তারা হলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সুখ দুখের কান্ডারী ইসমাইল হোসেন বাবুল তালুকদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক, বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আব্দুল হামিদের সন্তান, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সাইফুল ইসলাম বিজয়, উপজেলা আওয়ামীলীগের দীর্ঘদিনের সাবেক সাধারন সম্পাদক নুরুজ্জামান, বকশীগঞ্জ কিয়ামত উল্লাহ কলেজের সাবেক ভিপি ও চাষী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন তালুকদার বাহাদুর, বকশীগঞ্জের সবচেয়ে আলোচিত ব্যক্তিত্ব, যাকে মানুষ সুখ দুখে কাছে পায় নজরুল ইসলাম সওদাগর, ময়মনসিংহ স্বেচ্ছা সেবক লীগের নেতা ও তরুন সমাজ সেবক মোফাখ্খার হোসেন খোকন এবং কেন্দ্রী মহিলা লীগের নেত্রী শাহীনা বেগম।

ইসমাইল হোসেন বাবুল তালুকদার উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নুর মোহাম্মদের চরম দুঃ সময়ে তার পাশে থেকেছেন। দলের চরম বিভক্তির সময় উপজেলা আওয়ামীলীগের একটি অংশের নেতৃত্বে দিয়ে নেতাকর্মীদের শ্রদ্ধার পাত্রের পাশাপাশি নেতাকর্মীদের হৃদয়ে ঠাই করে নিয়েছেন। তার সমর্থকরা তাকে ছাড়া অন্য কিছু ভাবতেই পারছে না। মনোনয়ণ পেলেও বাবুল তালুকদার, না পেলেও বাবুল তালুকদার এই শ্লোগান নিয়ে রয়েছেন মাঠে।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিজয় রয়েছে দুর্দান্ত দাপট নিয়ে মাঠে। দলীয় কোন্দলের সময় সবার পদপদবী টলমল হলেও তার পদ ছিল অক্ষত। তিনি অত্যন্ত কৌশল করে দলের মধ্যে ঐক্যে স্থাপনে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করেছেন। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও জন্মসুত্রে আওয়ামীলীগার হওয়াতে তিনিই মনোনয়ন পাবেন এটাই তার সমর্থক ও ভক্তরা আশা করে আসছে। তবে তিনি ঘোষনা দিয়েছেন মনোনয়ন পেলে নির্বাচনে অংশ নিবেন, না পেলে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে অবস্থান নিবেন।

আনোয়ার হোসেন তালুকদার বাহাদুর দীর্ঘদিন যাবত রয়েছেন মাঠে। বকশীগঞ্জের কিয়ামত উল্লাহ কলেজের আওয়ামীলীগের মনোনিত সাবেক ভিপি হিসাবে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জণ করেন। বয়সে তরুণ হওয়ায় যুবক ভোটারদের কাছে বাহাদুর হচ্ছে আইকন।

বকশীগঞ্জের সবচেয়ে আলোচিত নাম নজরুল ইসলাম সওদাগর। তিনি দরিদ্র মানুষের রবিনহুড নামে পরিচিত। সকল মানুষের বিপদ আপদে এগিয়ে আসেন। নজরুল ইসলাম সওদাগর বর্তমানেও পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক হিসাবে স্থানীয় এমপির ও আওয়ামীলীগের একটি অংশের নেতৃত্বে গুরুত্বপুর্ণ ভুমিকা পালন করে যাচ্ছেন। তার সমর্থকদের আশা নজরুলই পাবেন দলীয় মনোনয়ন ।

মোফাখখার খোকন, বকশীগঞ্জ একটি আলোচিত নাম। যে খানেই চোখ যায় তার ছবি সম্মলিত পোষ্টার ও ব্যানার চোখে পড়ে। উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক হলেও ময়মনসিংহ বিভাগীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রভাবশালী নেতা। তরুণ এই নেতার জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিভাগীয় ও কেন্দ্রীয়ভাবে শক্ত লবিং থাকায় তারও মনোনয়ণ পাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।
এছাড়া আওয়ামীলীগের প্রার্থীদের মধ্যে কেন্দ্র্রীয় মহিলা লীগের নেত্রী শাহীনা বেগম ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক নুরুজ্জামান দলীয় মনোনয়ণ পাওয়ার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ দিকে আওয়ামীলীগের প্রার্থীদের মধ্যে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে যুদ্ধ চললেও বিএনপির একক প্রার্থী হিসাবে ফখরুজ্জামান মতিন লিপ্ত হয়েছেন ভোট যুদ্ধে। আওয়ামীলীগের দলীয় কোন্দলের সুযোগ নিয়ে দ্রুতই দ্রুতই মাঠ গোছাচ্ছেন তিনি। দিন দিন তার সমর্থক ও ভোটারের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে চলছে।
প্রসঙ্গত, তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ২৭ নভেম্বর, বাছাই ২৮ ও ২৯ নভেম্বর ও প্রত্যাহারের শেষ সময় ৭ ডিসেম্বর। ভোট অনুষ্ঠান ২৮ ডিসেম্বর।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102