শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ০৫:২১ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English
সদ্য পাওয়া :
করোনাকালীন সময় মানুষের পাশে প্রবাসী বাংলাদেশি শারমিন রহমান এবং শেখ আরিফ রাব্বানি জামি বকশীগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের পাঁশে দাড়ালেন মেয়র নজরুল বকশীগঞ্জে অগ্নিকান্ড, ৭ লক্ষ টাকা ক্ষতি শারীরিক প্রতিবন্ধী নারীকে আর্থিক সহায়তা করলেন পুলিশ সুপার বকশীগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধা রশীদ মাষ্টারের মৃত্যু, সর্ব মহলে শোক বকশীগঞ্জে সাংবাদিক পরিবারের উপর হামলাকারী রাসেলের জামিন নামঞ্জুর জামালপুর প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ জামালপুরে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের ২৭তম  প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত জামালপুরে মুক্তিযোদ্ধার জমি অবৈধ ভাবে দখলের চেষ্টা বকশীগঞ্জে লক ডাউনে দোকানের ছবি তোলায় সাংবাদিকের উপর হামলা, হামলাকারী আটক

আস্থা ও ভালবাসার নাম নুর মোহাম্মদ

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৭
  • ১০৬৬ জন সংবাদটি পড়ছেন

গাছ লাগানো, বীজ বিতরণ টিউবওয়েল-ল্যাট্রিন স্থাপনই নূর মোহাম্মদের কাজ

মানুষকে ভালোবাসতেই রাজনীতি করেন তিনি। রোগ, শোক, বন্যা-প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ যে কোনো বিপদে গিয়ে পাশে দাঁড়ান এলাকার মানুষের।


নিজের কষ্টার্জিত অর্থ দিয়ে বাড়ি বাড়ি হেঁটে হেঁটে গাছ লাগান, কখনো স্থাপন করেন  টিউবওয়েল কখনো স্যানিটারি ল্যাট্রিন। রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়া ব্যতিক্রমী এ মানুষটির নাম নূর মোহাম্মদ। তিনি জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। ঢাকাতে ব্যবসা করেন। অর্জিত টাকা ব্যয় করেন মানুষের কল্যাণে। সর্বশেষ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ১০ হাজার কৃষককে দিয়েছেন বোরো ধান ও গম বীজ। বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইসমাইল হোসেন বাবুল তালুকদার বলেন, এবারের বন্যায় ফসল ডুবে যাওয়ায় উপজেলার কৃষকরা বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়েছে। উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের ১০ হাজার ক্ষতিগ্রস্ত কৃষককে বাঁচাতে ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৫০ লাখ টাকায় ১০ হাজার কেজি উন্নতমানের বোর ধান ও গম বীজ বিতরণ করেছেন নূর মোহাম্মদ। গত সপ্তাহে কৃষকের হাতে তিনি এগুলো তুলে দেন।

 এই বীজ দিয়ে কৃষকরা ১০ হাজার একর জমিতে চাষ করতে পারবেন। এর ফলে কৃষকের ঘরে উঠবে ৫ লাখ মণ ধান ও গম।তিনি জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নূর মোহাম্মদ দীর্ঘদিন থেকে এলাকার সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। নানাভাবে তাদের সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। গত বছরের বন্যায় জেলার প্রতিটি ইউনিয়নে তিনি ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ত্রাণ দিয়েছেন। ২০০৬ সালে তিনি উপজেলার সোয়া লাখ পরিবারের মধ্যে গাছের চারা দেন ও পরিচর্যার খরচ দেন। এখনো প্রতিনিয়ত মানুষের মাঝে বাড়ি বাড়ি গিয়ে গাছ বিতরণ করেন তিনি। একটি করে ফলের গাছ ও একটি কাঠের গাছ বিতরণ করেন তিনি। তার দেওয়া প্রতিটি চারা গাছ এখন বৃক্ষ হয়ে উঠেছে। এর একটি গাছ বিক্রি করলে ওই পরিবারগুলো কমপক্ষে ২০ হাজার টাকা পাবে। এ ছাড়া উপজেলার মানুষের স্বাস্থ্য নিরাপত্তায় তিনি ৩৬ হাজার স্যানিটারি ল্যাট্রিন ও বিশুদ্ধ পানির চাহিদা পূরণে ১৪ হাজার টিউবওয়েল স্থাপন করে দিয়েছেন। এখানেই শেষ নয়। টাকার অভাবে এই উপজেলার কোনো শিক্ষার্থীর পড়াশোনা যাতে বন্ধ না হয় এজন্য চালু করেছেন শিক্ষাবৃত্তির ব্যবস্থা। প্রতি মাসে ৪০০ শিক্ষার্থীর পড়াশোনার ব্যয় বহন করেন তিনি। মেধাবী শিক্ষার্থীদের ভালো ফলাফলে উৎসাহ জোগাতে পুরস্কারের ব্যবস্থাও করেছেন তিনি। মসজিদ, মাদ্রাসা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নির্মাণ বা উন্নতকরণে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেন। ঈদ, পূজা, পার্বণে সহযোগিতা শুরু করে শীতবস্ত্র বিতরণে প্রতিবছরই তাকে পাশে পায় এলাকার মানুষ। রোগাক্রান্ত অসহায় মানুষের চিকিৎসার ব্যয় বহন করতে পরোপকারী এই মানুষটি বাড়িয়ে দেন সাহায্যের হাত। বকশীগঞ্জ মানুষের বিপদের বন্ধু হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নূর মোহাম্মদ।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরও সংবাদ
সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ
        Develop By CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102