শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:৩৫ অপরাহ্ন
Bengali Bengali English English

ইসলামপুরে ক্লিন ইমেজের নেত্রী মাহজাবিন খালেদ বেবী এমপি

সংবাদদাতার নামঃ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১ আগস্ট, ২০১৭
  • ১৫৭৩ জন সংবাদটি পড়ছেন

নারায়ন মোদক ঃ  জামালপুরের ৫টি সংসদীয় আসনের মধ্যে জামালপুর-২ ইসলামপুর আসনে বর্তমানে রয়েছেন ২জন এমপি। একজন বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম প্রতিবাদকারী শহীদ বিগ্রেডিয়ার জেনারেল খালেদ মোশারফের কন্যা সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি মাহজাবিন খালেদ বেবি এবং অপরজন বর্তমান এমপি ফরিদুল হক খান দুলাল। তাদের দু’’জনের মধ্যে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন কে পাবেন এনিয়ে দলীয় নেতাকর্মীসহ সচেতন ভোটারদের মাঝে চলছে চুলচেরা বিশ্লে-ষণসহ নানা হিসাব নিকাশ।

এছাড়াও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের মনোনয়ন নিয়ে ওই দুই সংসদ সদস্যের সমর্থকদের মধ্যে চলছে গ্রুপিং ও অন্তদ্বন্দ্ব। তবে ক্লিন ইমেজের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসাবে মাহজাবিন খালেদ বেবী এমপি অনেকটাই সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন বলে আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মী ও সচেতন ভোটারদের অনেকেই জানিয়েছেন ।
জানাগেছে, মাহজাবিন খালেদ বেবি জামালপুরের সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি হওয়ার পর থেকে প্রতিনিয়তই ইসলামপুরবাসীর খোঁজ খবর রাখছেন। তিনি গত তিন বছর ধরে ইসলামপুরের বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে গিয়ে উঠান বৈঠক করে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরছেন। রাজনৈতিক পরিবারে বড় হওয়ায় মাহজাবিন খালেদ বেবি এমপি নিজ পরিবারের কাছেই রাজনৈতিক কর্মকান্ডের দক্ষতা অর্জন করেছেন। সেই সুবাদে তিনি দলের প্রবীণ ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে প্রায় তিন বছর ধরে এলাকার উন্নয়ন কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন। সেই সাথে তিনি দলের প্রবীণ ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নিয়মিত ইসলামপুরের বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে গণসংযোগ করছেন। এতে বিগত ৩বছরেই সংসদ সদস্য হিসাবে তার সফলতার আলো ইসলামপুরের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে আওয়ামীলীগের দলীয় নেতাকর্মীসহ ইসলামপুরের সবকটি ইউনিয়নের সচেতন ভোটারদের হৃদয়ে মিশে গেছেন।

তবে মাহজাবিন খালেদ বেবি এমপি’র রাজনৈতিক সফলতার বিষয়টি সু-নজরে দেখছেন না বর্তমান সংসদ সদস্য ফরিদুল হক খাঁন দুলাল ও তার সমর্থকরা। এনিয়ে দুই সংসদ সদস্য ও তাদের সমর্থকদের মধ্যে চলছে গ্রুপিং ও অন্তদ্বন্দ্ব।
এব্যাপারে মাহজাবিন খালেদ বেবি জানান,আমি ক্ষমতা লাভের জন্য রাজনীতি করি না, রাজনীতিতে এসেছি মানুষের কল্যাণ করতে। ক্ষমতার লোভ আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে নেই। ইসলামপুরের অবহেলিত মানুষের জন্য আমি দীর্ঘদিন ধরেই কাজ করে যাচ্ছি। ইসলামপুরের প্রত্যান্ত অঞ্চলে হেঁটে বা নৌকায় গিয়ে সাধারণ মানুষের খোঁজ নিচ্ছি। এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রাখছি। সাধ্যমতো অংশ নিচ্ছি দলের কর্মকান্ডে।

এ ব্যাপারে এমপি ফরিদুল হক খান দুলাল বলেন, ইসলামপুরের অসহায় মানুষগুলোর জন্য কিছু করার চিন্তা নিয়েই রাজনীতির মাঠে নেমেছি। এদের ভাগ্যের পরিবর্তন না করে ঘরে ফেরার কোন অভিলাষ আমার নেই। তিনি আরও বলেন, বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ইসলামপুরবাসীকে দেওয়া প্রতিশ্রতি শতভাগ পূরণের নিমিত্তে ২০৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ব্রহ্মপুত্র নদের উপর দুইটি সেতু এবং ১২০ কোটি টাকা ব্যয়ে ইসলামপুর-বেনুয়ারচর, ইসলামপুর-ঝগড়ারচর ও ইসলামপুর-বকশীগঞ্জ সড়ক নির্মান ও পাকা করণের কাজ সমাপ্ত করা হয়েছে। এছাড়াও ইসলামপুরের অসংখ্য রাস্তা-ঘাট, ব্রীজ-কালভার্ট, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, মসজিদ, মন্দির, কবরস্থান ও শ্বশান ঘাটের উন্নয়ন করা হয়েছে।
অপরদিকে ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের একটি অংশ নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, বর্তমান এমপি ফরিদুল হক খাঁন দুলাল বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজ করেছেন বলে যে দাবি করেন তা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতির অংশ। এমপি ফরিদুল হক দুলাল আওয়ামীলীগের একটি অংশকে বাদ দিয়ে জামাতকরণ ও স্বজনপ্রীতির মাধ্যমে দলের ত্যাগী নেতাদের দুরে সরে ঠেলে দিয়েছেন। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের মুল্যায়ন না করে জামায়াত ও বিএনপিদের দলে ভিড়িয়ে তাদেরকে দলের ভালো জায়গায় স্থান করে পুর্নবাসন করেছেন। এছাড়াও ফরিদুল হক খাঁন দুলাল সংসদ সদস্য হয়েও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পদের লোভ সামলাতে না পারায় দল দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েছে। সর্বোপরি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে ক্লিন ইমেজের সম্ভাব্য প্রার্থী মাহজাবিন খালেদ বেবি এমপি অনেকটাই সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন। অন্যদিকে ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি এলাকার উন্নয়ন কর্মকান্ডে দলীয় নেতাকর্মীদের অবমুল্যায়ন করায় এবং দলীয় কোন্দলের কারণে বেশ বেকায়দার রয়েছেন।

পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102